প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৪৭ বছর ধরে চাঁদপুরের রূপসার ইউনিয়নের নারীরা ভোট দেন না

হ্যাপি আক্তার : স্বাধীনতার পর থেকে স্থানীয় এক পীরের নির্দেশে কখনোই নির্বাচনে ভোট দিতে পারেন না চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ১টি ইউনিয়নের নারী ভোটাররা। প্রতিদিনের প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হলেও ভোট কেন্দ্রে যান না তারা। ফলে জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে কোনো ভূমিকা রাখতে পারেন না এই নারী ভোটারা। ডিবিসি নিউজ

রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নে মোট ভোটার ২৪ হাজার ৪৫৪ জন। এদের মধ্যে নারী ভোটার রয়েছে ১২ হাজার ১১৪ জন। লেখাপড়া, বাজারঘাট আর অন্যান্য দৈনন্দিন কাজে ঘরের বাইরে বেরোলেও নির্বাচনের দিন ঘরে বসেই সময় কাটে এসব নারীর। কখনওই ভোট দিতে যান না ভোটকেন্দ্রে।

নারী ভোটাররা বলেন, আমাদের এখানে মহিলাদের ভোট না দেয়া নির্দেশ এক হুজুরের। সুতরাং এখানকার মহিলাদের ভোট দেয়া হয় না। আসন্ন নির্বাচনেও এই ইউনিয়নের নারীরা ভোট দিতে পারবেন কিনা তা নিয়েও সংশয় রয়েছেন এখানকার সাধারণ মানুষের মাঝে।

স্থানীয়রা বলেন, হুজুর নিষেধ করার পর থেকে এখানকার মহিলারা কেউ ভোট দেয় নাই এখন পর্যন্ত। তাই মহিলারা ভোট দিতে আসে না, আর স্থানীয় লোকজন তাদের ভোট দিতে বলেও না। নারী ভোটারদের কয়েকবার চেষ্টা করা হলেও কোনো লাভ হয়নি, বরং দুর্ঘটনা ঘটেছে।

তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানালেন পীরের নামে গুজব ছড়িয়ে ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত রাখা হয়েছে এখানকার নারীদের।

ফরিদগঞ্জ রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইসকান্দার আলী বলেন, ‘গুজব উঠেছিলো, তবে সমস্ত ব্যাপার সমাপ্ত হয়ে গেছে। এখন মহিলারা আসবে এবং ভোট দিবে।’

এবার নারী ভোটারদের ভোট দিতে উদ্বুদ্ধ করা হবে বলে জানালেন চাঁদপুর জেলা নির্বাচন কর্মাকর্তা মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচনে ভোটাররা যাতে ভোট কেন্দ্রে যায় নারী ভোটারসহ সকলে, সে কারণে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এবং তার প্রতিনিধি হিসেবে রিটার্নিং অফিসার, সহকারি রিটার্নিং অফিসারসহ আমাদের উপজেলা নির্বাচন অফিসার এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নিবেন।’ সম্পাদনা : সালেহ বিপ্লব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত