প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সন্ত্রাসীর হাত থেকে মনোনয়ন নেবেন না ড. কামাল : কাদের

আহমেদ জাফর : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যাকে নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গড়ে তোলা হয়েছে সেই ড. কামাল হোসেন বলেছেন যাকে দিয়ে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে তার হাত থেকে মনোনয়ন নেবে না। কোন সন্ত্রাসীর হাত থেকে মনোনয়ন নিবেন না। তাই তিনি মনোনয়নপত্র নেননি। বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) ধানমন্ডি  আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলন করে একথা জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপকমিটির সঙ্গে বৈঠক হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একটি প্রতিনিধিদল। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরিবেশ সুস্থ ও সুন্দর পরিবেশ থাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে। তাই তারা নির্বাচনের সময় পর্যবেক্ষক পাঠাবে না। এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ঐক্যবদ্ধ নয় উল্লেখ করে কাদের বলেন, তাদের মধ্যে ঐক্য নেই। তাদের নেতৃত্ব এখন জগাখিচুড়ি হয়ে গেছে। তারা নিজেরাই নিজেদের মধ্যে বোঝা পড়া করতে পারেনি। তাই এ অবস্থা তাদের জামায়াত ছাড়া বিএনপি অচল এমন মন্তব্য করে কাদের বলেন, বিএনপি-জামায়াতকে কখনও ছাড়তে পারবে না। জামায়াত ছাড়া বিএনপির অবস্থা অচল। তাই বিএনপি জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনে আসছে।

বিএনপির বিভিন্ন নেতাদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে এ সম্পার্কে অভিযোগ করছে বিএনপি সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, কোন নেতাকে মনোনয়নপত্র জমায় বাধা দেয়া হচ্ছে না। তাদের সিদ্ধান্তে দলীয় কোন্দলের জগাখিচুড়ী কারণেই নিজেরা নিজেদের মধ্যে বাধা বিঘœ করছে। তাছাড়া নির্বাচন কমিশনের আইন এবং সময় নির্দিষ্ট করায় ওই সময়ের মধ্যেই মনোনয়নপত্র দিতে হবে। নিয়ম কানুন নির্বাচন কমিশন চলে এর বাইরে কাউকে কোন কিছু করার সুযোগ দেওয়া হবে না।

জঙ্গিগোষ্ঠীর অর্থায়েনে করা শাকিলাকে মনোনয়ন দিয়েছে বিএনপি এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা জঙ্গিগোষ্ঠী ও যুদ্ধাপরাধীদের কে মনোনয়ন দিচ্ছে। এটা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে শক্তি নয়, তারা সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আবারোও প্রমাণিত। বিএনপি স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি না। স্বাধীনতার স্বপক্ষ শক্তি দাবি করে এটা তাদের মনগড়া।
১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টি প্রসঙ্গে কাদের বলেন, ‘আমরা জাতীয় পার্টিকে বলেছি প্রয়োজনে তিনশত আসনে প্রার্থী দিয়ে দিতে। কিন্তু যোগ্য ও জেতার মতো প্রার্থী হতে হবে। আমরা যাঁদের যোগ্য এবং জয়ী হওয়ার মতো মনে করেছি, তাঁদের মনোনয়ন দিয়েছি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সহ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিম, মোজাম্মেল হক, আহমদ হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, প্রমূখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ