প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রতীকের চেয়ে ঐক্য বড়, ঐক্যেকে সম্মান করে ধানের শীষ নিয়েছি : শফিকুর রহমান

মারুফুল আলম : জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান বলেছেন, প্রতীক বড় নয়, বরং ঐক্যটাই বড়, এটাকে সম্মান করেই ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছি। বৃহস্পতিবার বিবিসি বাংলাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, যেভাবেই হোক আমাদের দলের নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে। আমরা চাইলেও এখন দলের নামে এবং নিজস্ব প্রতীকে নির্বাচন করতে পারছি না। আপনি লক্ষ্য করবেন, জোটের সবাই ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছে। সকল দলের নীতি-আদর্শ-লক্ষ্য এক হয় না বলেই দল ভিন্ন হয় এবং বড় কোনো উদ্দেশ্য সামনে চলে আসলে দলগুলো পরস্পর কাছাকাছি চলে আসে। এখন আমাদের কাছে ঐক্যটাই বড়। তাই ঐক্যকে সম্মান করে জাতীয় স্বার্থে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছি।

প্রসঙ্গত, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শরীক জামায়াত ইসলামী জানিয়েছে, আসন্ন নির্বাচনে ধানের শীষ নিয়ে তারা নির্বাচন করবে। বিএনপির সঙ্গে আসন-ভাগাভাগির আলোচনা এখনো শেষ হয়নি। তবে ২৫টি আসনে জোটের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশন জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল করায় দলটি তাদের দলীয় প্রতীক দাঁড়িপাল্লা নিয়ে নির্বাচন করতে পারছে না।

দলীয়ভাবে স্বতন্ত্র প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত থেকে আপনারা সরে আসলেন কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, মানুষের ভোটের অধিকার ও বাঁচার অধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য আজকে সবাই স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একই প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছে, সেখানে আমরা ভিন্ন প্রতীক নিয়ে একটা প্রশ্ন সৃষ্টি করতে চাইনি। তবে আমাদের পূর্বের সিদ্ধান্ত যে পাকাপাকি ছিলো তাও নয়।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্য দলগুলোর সঙ্গে রাজনৈতিক কৌশল নির্ধারণ বা সমঝোতা নিয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা বা যোগাযোগ হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে ওটার প্রয়োজন হয় না। আমরা ২০ দলীয় জোটে আছি। আর সবার মধ্যে সমন্বয়সাধন করে বিএনপি। ২০ দলীয় জোটকে সাথে নিয়ে আলোচনার ভিত্তিতেই বিএনপি সবকিছু করে। আমাদের যতটুকু পরামর্শ-চিন্তা ওখানেই দিয়ে থাকি এবং অন্যরাও দিয়ে থাকেন। সবকিছুকে সমন্বিত করেই কিন্তু তারা বৃহত্তর সমন্বয়টা করছেন। কাজেই আলাদাভাবে বা গোপনে কারো সাথে বসার প্রয়োজন হয় না।

জাতির বৃহত্তর স্বার্থে জোটের অন্যদলগুলোর সঙ্গে পরস্পরের সহযোগিতায় তার দল কমিটেড বলে জানান জামায়াতের এই নেতা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত