Skip to main content

ক্ষমতার রাজনীতির নগ্নতম প্রতিফলন আমাদের রাজনীতি : ড. বদিউল আলম

উল্লাস মূর্তজা : সুজন এর সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, ক্ষমতার রাজনীতির নগ্নতম প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে আমাদের রাজনীতিতে। যে কোনো মূল্যে ক্ষমতায় যেতে হবে। জনকল্যাণের জন্য যদি হয় এই ক্ষমতা, তাহলে কিন্তু ক্ষমতার লোভ এতো দেখা যেতো না। যদিও কোনো দলেই সেটা দেখা যায় না। আমরা দেখছি নীতি-নৈতিকতা বিবর্জিত রাজনীতি। ২ দলেই মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি আছে। তারপরো ক্ষমতার লোভে অন্ধ হয়ে গেছে আমাদের রাজনৈতিক দলগুলো। মঙ্গলবার ‘আর টিভি’র টকশোতে এসব কথা বলেন তিনি। ইভিএম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একটা সময় বলা হলো সবার ঐক্যমতের ভিত্তিতে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। পরে ২ হাজার ৮শ কোটি টাকা খরচ করে ইভিএম কেনা হলো। প্রত্যেকটা রাজনৈতিকদলের কাছে, যে ইভিএম ব্যবহার করা হবে তার নমুনা প্রদর্শন করা উচিৎ ছিলো। সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ টেকনিক্যাল কমিটি দিয়ে এটার বিশ্বাস যোগ্যতা মূল্যায়ন করা উচিৎ ছিলো। কিন্তু ইসি এগুলো না করে, হঠাৎ করেই ইভিএম ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করে। ফলে মানুষের অনাস্থা তৈরি হয় নির্বাচন কমিশনের ওপর। ড. বদিউল আলম আরো বলেন, এই নির্বাচন কমিশন যখন যাত্রা শুরু করে, পরপর কয়েকটা নির্বাচন মোটামুটি ভালোই হয়েছে। কুমিল্লা, রংপুরের নির্বাচনে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলো। কিন্তু পরে যতোগুলো নির্বাচন হয়েছে সবগুলোই নিয়ন্ত্রিত নির্বাচন হয়েছে। দূর্ভাগ্যবশত প্রত্যেকটা জায়গায়ই ইসি নীরব ভূমিকা পালন করেছে। এ সকল কারণেই নির্বাচন কমিশন মানুষের আস্থা হারিয়েছে। সবকিছু জেনেও রাজনৈতিক দলগুলো অংশগ্রহণ করছে এটা ইতিবাচক দিক। তিনি বলেন, আমরা নাগরিকরা চাই আমাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে। আমরা চাই একটা অবাধ সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন। রাজনৈতিক দলের অনেক দাবি থাকতে পারে, আলোচনা সমালোচনা থাকতে পারে। তবে তা কিছুটা গঠনমূলক, তবে অধিকাংশই অনাকাক্সিক্ষত। নির্বাচন কমিশন অনেক আগেই তাদের আস্থা হারিয়েছে। তিনি আশা করেন ইসি অন্তত নির্বাচনের আগেই মানুষের আস্থা ফিরিয়ে আনতে পারবে। সাধারণ মানুষ এখন চায় তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে। ২০১৪ সালে মানুষ তাদের ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছে। ভবিষ্যতে যাতে এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সে বিষয়টা নিশ্চিত করতে পারলেই অনেক সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে মনে করেন, ড. বদিউল আলম। সূত্র: আরটিভি

অন্যান্য সংবাদ