প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাঠের লড়াইয়ে উৎসবের আমেজ

আসাদুজ্জামান সম্রাট : সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাঠের লড়াই শুরু হয়েছে। বুধবার সারাদেশে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে জেলা ও উপজেলাগুলোতে উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়। প্রধান দুই রাজনৈতিক জোটের প্রার্থীরা ছাড়াও অন্য দলগুলোর প্রার্থীরাও তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। তবে মূল লড়াইটি শুরু হবে ৯ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের পর থেকেই।

প্রায় একমাস ব্যাপী ঢাকায় প্রধান দুই রাজনৈতিক জোট আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট এবং ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্ট তাদের প্রার্থী স্ব স্ব জোটের পক্ষ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের কাছে ফরম বিতরণ, সাক্ষাৎকার এবং প্রার্থী নির্বাচন সম্পন্ন করেছে। ঐক্যফ্রণ্টের প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি তাদের জন্ম পরবর্তী সবচে’ বেশিদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা এবং আন্দোলন সংগ্রামের কারণে মামলা জটিলতার কারণে প্রায় প্রতিটি আসনেই একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছে। এর মধ্যে যাচাই-বাছাইয়ে চূড়ান্তভাবে টিকে যাওয়া প্রার্থীদের মধ্য থেকে চূড়ান্ত লড়াইয়ে কে থাকবেন তা বাছাই করা হবে।

একইভাবে কৌশলগত কারণে মহাজোটের শরীক দল আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাসদের একাধিক প্রার্থী রয়েছে বেশ কিছু নির্বাচনী এলাকায়। শেষ মুহুর্তে এসব আসনেও প্রার্থীতা চূড়ান্ত করা হবে। ফলে আসল লড়াইটি শুরু হবে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের পরেই।

দলীয় মনোনয়ন নিয়ে দলের মধ্যে বিদ্রোহ থাকলেও প্রতিদ্বন্ধী রাজনৈতিক দলের মধ্যে এখনও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিরাজ করছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। প্রধান দু’রাজনৈতিক জোটে এখন মনোনয়নের চূড়ান্ত লড়াই অব্যাহত থাকলেও ভোটের লড়াই এখনও প্রাধান্য পাচ্ছে না।

দুই জোটের প্রার্থীরা স্ব স্ব এলাকার রিটার্নিং অফিসার, সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিলের পর এলাকায় কর্মীসভায় মিলিত হচ্ছে। রাজশাহী-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও মহাজোটের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক জানিয়েছেন, তিনি গত মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বুধবার কর্মী সভা করেছেন। এলাকার নেতা-কর্মীদের সংগঠিত করার জন্য কাজ করছেন। তিনি আশা করছেন এবার এ আসন থেকে হ্যাট্রিক জয় তুলে আসনটি জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেবেন।

ঢাকায় মনোনয়নপত্র দাখিল শেষে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামও হ্যাট্রিক জয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। ঢাকা-১০ আসনের প্রার্থী ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস বলেছেন, এলাকার উন্নয়নে তিনি নিরলসভাবে কাজ করেছে। ভোটাররা এর মূল্যায়ন করবেন। ঢাকা-১৩ আসনের প্রার্থী সাদেক খান দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে এলাকাবাসী নৌকায় ভোট দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন। ঢাকা-১৩ আসনের বিএনপির প্রার্থী আব্দুস সালাম বলেছেন, অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনি জয়লাভ করবেন। ঢাকা-১৮ আসনের প্রার্থী এসএম জাহাঙ্গীর বলেছেন, নির্বাচনে ব্যলটের মাধ্যমে দেশবাসী সরকারের দু:শাসনের জবাব দেবে।

বরিশালে মনোনয়নপত্র দাখিল করে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরওয়ার বলেছেন, নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হবেন। বরিশাল-১ আসনের প্রার্থী জহির উদ্দিন স্বপন বলেছেন, আওয়ামী লীগের দু:শাসন থেকে মুক্তি পেতে দেশবাসী ঐক্যফ্রণ্টের প্রার্থীকে বিজয়ী করবেন। প্রার্থীদের সবাই সশরীরে উপস্থিত হয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করেননি। অনেক প্রার্থী নেতা-কর্মীদের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বরিশাল-২ আসনে সাবেক হুইপ শহীদুল হক জামাল ও সরফুদ্দিন সান্টু তাদের কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

লক্ষীপুর-১ আসন থেকে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেও এবার জাকের পার্টির গোলাপ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন এমএ আউয়াল। তিনি জানান, তার আসনটি তরিকত ফেডারেশন থেকে আওয়ামী লীগ নেতা ডা. আনোয়ার খানকে মনোনয়ন দেয়ায় তিনি জাকের পার্টি থেকে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত