Skip to main content

সব সূচকে এগিয়ে রয়েছে ইসলামী ব্যাংকিং

আদম মালেক : আমানত ঋণ বিতরণ ব্যবসা মুনাফা তারল্য প্রবৃদ্বিসহ ব্যাংকিং খাতের সব সূচকে দেশের প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোর চেয়ে এগিয়ে রয়েছে ইসলামী ব্যাংকিং সেক্টর। অগ্রগতি রয়েছে লোকবল নিয়োগ,ব্যাংকিং শাখা বিস্তার ও সামাজিক কর্মকা-ে। রেমিটেন্স সংগ্রহেও এ সেক্টরের সাফল্য ঈর্ষণীয় বলে বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানায়, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে(জুলাই-সেপ্টেম্বর) দেশের ৫৮ ব্যাংকের মোট আমানত ৯ লাখ ৭৭ হাজার ১২০ কোটি ৭০ লাখ টাকা । এর মধ্যে ইসলামী ব্যাংকগলোর আমানত ২ লাখ ২৭ হাজার ৮১৪ কোটি ৪৪ লাখ টাকা যা দেশের ব্যাংকিং খাতে আমানতের ২৩ দশমিক ৩১ শতাংশ। এই আমানত মে-জুন প্রান্তিকের চেয়ে ৩ হাজার ৫৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা বেশী। ঐ প্রান্তিকে ইসলামিক ব্যাংকিংয়ে আমানত ছিল ২ লাখ ২৪ হাজার ৭৫৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা। গেল বছরের জুলাই-সেপ্টেম্বরে প্রান্তিকের তুলনায় চলতি আমানত ১১ দশমিক ৬৭ শতাংশ বেশী। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জুলাই-সেপ্টম্বর প্রান্তিকে দেশের ব্যাংকিং খাতের মোট বিনিয়োগ ৯ লাখ ১৭ হাজার ২৪৫ কোটি ৯০ লাখ টাকা। এই বিনিয়োগের একটি বড় অংশ জুড়ে রয়েছে ইসলামিক ব্যাংকিং। ইসলামী ব্যাংকিং সেক্টরের বিনিয়োগের পরিমাণ ২ লাখ ২০ হাজার ৩৪৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা যা দেশের ব্যাংকিং খাতের মোট বিনিয়োগের ২৪ দশমিক ০২ শতাংশ। এই বিনিয়োগ এপ্রিল-জুন প্রান্তিকের চেয়ে দশমিক ০৯ শতাংশ বেড়েছে। চলতি প্রান্তিকে ৮টি পূর্ণাঙ্গ ইসলামী ব্যাংকের বিনিয়োগ ৯৫ দশমিক ২২ শতাংশ, তফসিলি ব্যাংকগুলোর ইসলামী শাখার বিনিয়োগ ২ দশমিক ৬২ শতাংশ। অবশিষ্ট ২ দশমিক ১৬ শতাংশ তফসিলি ব্যাংকগুলোর ইসলমী উইং বিনিয়োগ করেছে।

অন্যান্য সংবাদ