প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খেলতে না পারলে বাসায় থাকো: মরিনহো

স্পোর্টস ডেস্ক:  ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কোচের রাগের পরিমাণ এতটাই যে, ক্ষিপ্ত হয়ে শিষ্যদের বলে দিয়েছেন ‘যদি চাপ না নিতে পারো তবে মাঠে এসো না’!

মরিনহোর রাগের কারণও অবশ্য আছে। শেষ ৯ ম্যাচে মাত্র তিনটিতে জয়ের দেখা পেয়েছে ম্যানইউ। এমনকি প্রিমিয়ার লিগে সবশেষ ম্যাচে ঘরের মাঠে ক্রিস্টাল প্যালেসের মতো ছোট দলের বিপক্ষেও গোলশূন্য ড্র করেছে রেড ডেভিলরা। এমন গরিবি পারফরম্যান্সের কারণে নিজেদের মাঠে মঙ্গলবার রাতে ইয়ং বয়েজের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচের আগে তাই কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ মরিনহোর।

‘যদি তোমরা চাপ নিতে না পারো তবে বাসায় থাকো। আর আমি বাসা বলতে স্টেডিয়ামকে বোঝায়নি, বলেছি আসল বাসার কথা। বলছি বাসায় থাকতে এবং সেখানে টিভিতে বসে খেলা দেখতে।’ সংবাদ সম্মেলনে শিষ্যদের প্রতি এভাবেই তোপ দেগেছেন মরিনহো।

‘আমার মনে হয় এটা আমাদের জন্য ভীষণরকমের অসম্মানের, যখন সমর্থকরা বলে আমরা নাকি নিজেদের মাঠে খেলার চেয়ে অন্যের মাঠে খেলতে বেশি স্বচ্ছন্দ বোধ করি। আমি এ বিষয়ে কথা বলতে চাই না।’

‘আমাদের কী ইয়ং বয়েজের সঙ্গে খেলতে মাঠে থাকা উচিত নাকি বার্নে যাওয়া উচিত? আমি বলবো অতি জরুরীভাবে ঘরের মাঠে খেলতে। সবসময়!’ যোগ করেন মরিনহো।

প্রিমিয়ার লিগের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও অস্বস্তিতে আছে ম্যানইউ। ৪ ম্যাচে ৭ পয়েন্টে গ্রুপ ‘এইচ’ থেকে দ্বিতীয় স্থানে তারা।

এর উপর আবার জুভেন্টাস ও ভ্যালেন্সিয়া ম্যাচে যানজটের কারণে ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের ৫ মিনিট দেরিতে মাঠে পৌঁছেছে ম্যানইউ। জুভেন্টাস ম্যাচের দিন প্রায় আধমাইল হেঁটে স্টেডিয়ামে যেতে হয়েছে মরিনহোকে। দলকে উয়েফার কাছে গুনতে হয়েছে জরিমানাও।

যানজটের ঝামেলা এড়াতে তাই টিম হোটেল পরিবর্তনে সমাধান দেখছেন মরিনহো, ‘আমরা হোটেল পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তাহলে আমাদের আর ম্যানচেস্টার সিটির প্রান্ত থেকে কষ্ট করে আসতে হবে না। আমরা মাঠের কয়েক মিটার দূরেই থাকবো। আমি ক্লাবের কাছ থেকে যে তথ্য পেয়েছি, আর ক্লাব পুলিশদের কাছ থেকে যা জেনেছে তা বেশ আশাব্যঞ্জক। আর যদি এবারও হাঁটতে হয় সেটা খুব একটা খারাপ হবে না।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ