প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গণফোরাম সুশাসনে সবচেয়ে জোর দেবে: রেজা কিবরিয়া

অনলাইন ডেস্ক : গণফোরাম সদ্য যোগ দেওয়া ড. রেজা কিবরিয়া বলেছেন, গণফোরাম সরকার গঠন করলে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সবচেয়ে বেশি জোর দেবে। পাশাপাশি উদ্যোগ নেবে উন্নয়নের সুফল সব পর্যায়ের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার।

সোমবার গণফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। হবিগঞ্জ-১ আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিয়েছেন জাতিসংঘের সাবেক এই কর্মকর্তা।

গণফোরাম সরকার গঠন করলে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কী ধরনের নীতি নেবে তার ধারণা তুলে ধরতে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এ অনুষ্ঠান হয়।

অনুষ্ঠানে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোকাব্বির খান, আমিন আফসারি, জগলুল হায়দার আফরিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ড. রেজা কিবরিয়া ১৯৯৬ থেকে ২০০১ মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকারের অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে। ২০০১ সালেও শাহ এএমএস কিবরিয়া সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৫ সালে সিলেটের হবিগঞ্জে গ্রেনেড হামলায় নিহত হন তিনি।

রেজা কিবরিয়া বলেন, অনেক খাত আছে যেখানে অরাজকতা চলছে। আইনের শাসন নেই। এ জন্য গণফোরাম সরকার গঠন করলে প্রথম কাজ হবে সুশাসন নিশ্চিত করা। যদিও কাজটি কঠিন। কারণ ঢাকার বারিধারার একটি স্কুলের শিক্ষার্থী যে সুবিধা পাবে, তা গ্রামাঞ্চলের স্কুলের শিক্ষার্থীকে দেওয়া কঠিন কাজ। তবে গণফোরাম চেষ্টা করবে কাছাকাছি মানের সুবিধা নিশ্চিত করতে।

তিনি বলেন, দেশে আয় ও সম্পদের বৈষম্য বেড়েছে। গণফোরাম প্রবৃদ্ধির সুফল সব স্তরে পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে বৈষম্য কমিয়ে আনার নীতি নেবে।

তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রের অনেক প্রতিষ্ঠান আছে, ঠিকভাবে কাজ করছে না। সেগুলোর ওপর থেকে মানুষের আস্থাও উঠে গেছে। গণফোরাম প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিজস্ব বৈশিষ্ট্যে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে গণফোরাম সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন বলেন, রেজা কিবরিয়া যা কিছু বলেছেন, তা গণফোরামেরই চিন্তা। ঐক্যফ্রন্ট সরকার পরিচালনার ক্ষেত্রে কী চিন্তা করে বা ইশতেহার কী হবে, তা যৌথভাবে ঠিক করা হবে।

নির্বাচনী আসন বণ্টন-সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল হোসেন বলেন, জোট হলে সেখানে ভাগাভাগি থাকবে। ভাগাভাগি মানেই কেউ পাবে, কেউ পাবে না। এগুলোর পরও জোট এগিয়ে যাচ্ছে। এখনও চূড়ান্ত কিছু হয়নি। আলোচনা চলছে।

তিনি বলেন, ঐক্যের জোর কোথায় তা নির্ভর করবে দেশের মালিক হিসেবে জনগণ কী ভূমিকা রাখবে তার ওপর।

আরেক প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল বলেন, একজন বলেছেন, তিনি গৃহযুদ্ধের ইঙ্গিত দেখছেন। ভোট কেন্দ্র পাহারার সঙ্গে গৃহযুদ্ধের সম্পর্ক কোথায়? তিনি আরও বলেন, কেন্দ্র শুধু নির্বাচনের প্রার্থীরা পাহারা দিলে হবে না, জনগণকেও দিতে হবে। সূত্র : সমকাল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ