প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জীবননগরে মাদক ব্যবসায়ীদের হামলায় বিজিবি সোর্স আহত

জামাল হোসেন খোকন, চুয়াড়াঙ্গা: জীবননগর উপজেলার হরিহরন গ্রামের চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীদের হামলায় হরিহরনগর জেলেপাড়ায় রোববার সন্ধ্যায় মারাত্মক ভাবে আহত হয়েছেন কথিত বিজিবি সোর্স হেলাল উদ্দিন নামের এক যুবক। এ ঘটনায় মাদক বিরোধী সচেতন মহলের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

আহত ব্যাক্তি- জীবননগর উপজেলা সীমান্ত ইউনিয়নের হরিহরনগর ভাংড়ীপাড়ার প্রান্তিক কৃষক সানোয়ার হোসেনের ছেলে কথিত বিজিবি সোর্স হেলাল উদ্দিন(২৫)।

এলাকাবাসী সুত্র জানান, জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের হরিহরনগর গ্রামটি নানা কারণে মাদক ব্যবসার নিরাপদ রুট হিসাবে পরিচিত। এ গ্রামের অধিকাংশ যুবকই একই গোপনে-প্রকাশ্যে মাদকের ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল। ভারত সীমান্ত থেকে ভারতের দুরত্ব খুব কাছাকাছি হওয়ায় সুযোগ-সুবিধা বুঝেই বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে এক সময় মাদক ব্যবসার রমরমা ভাব থাকলেও বর্তমানে সে অবস্থা আর নেই। তবে ওই গ্রামের বেশ কিছু মাদক ব্যবসায়ী বিজিবির সব ধরণের তৎপরতাকে পাশ কাটিয়ে গোপনে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যেতে থাকে।

কিন্তু তাদের সে ব্যবসার বিপক্ষে অবস্থান নেয় একই গ্রামের কথিত বিজিবি সোর্স হেলাল উদ্দিন। বিজিবিকে সাথে নিয়ে একের পর এক মাদক ব্যবসায়ীদের চালান আটক করতে থাকে হেলাল উদ্দিন।

এ ঘটনায় নড়েচড়ে বসে আব্দুল গনির ছেলে আজিজুল(৪০), সাদের আলীর ছেড়ে মুকি(৪০), চনা(৩৫) ও কামাল হোসেনের ছেলে রাশেদ ওরফে রাশিয়ান(৩২)। আজিজুল, মুকি, চনা ও রাশিয়ান সবাই সীমান্ত এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী।

এলাকার গুঞ্জন থেকে জানা গেছে, হেলাল রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে জেলেপাড়া দিয়ে যাওয়ার সময় মাদক ব্যবসায়ীদের চালান বিজিবি দিয়ে আটক করা হয়েছে এমন অভিযোগে মাদক ব্যবসায়ী আজিজুল, মুকি, চনা ও রাশিয়ান তার উপর হামলা চালায় ।

এ হামলায় হেলাল মারাত্মক ভাবে আহত হয়। তাকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে গ্রাম্য ডাক্তার দ্বারা প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এলাকায় মাদকের চালান আটকের ঘটনায় হামলার কথা বলা হলেও হামলাকারীদের দাবী পাওনা টাকা নিয়ে ঘটনা ঘটে গেছে।

আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক মেম্বার শফিউদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হেলালকে মারাত্মক ভাবে মারপিট করা হয়েছে। তাকে গ্রামের ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকায় বেপরোয়া হওয়ায় এ ধরণের ঘটনার জন্ম দিতে তারা সাহস দেখিয়েছে।

সীমান্ত ইউনিয়নের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বার আরজাম আলী বলেন,পাওনা টাকার ঘটনা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। তবে সংঘটিত ঘটনাটি আমরা স্থানীয় ভাবে আপস-নিস্পত্তির উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। আশা করছি তা শান্তিপূর্ণ ভাবে নিস্পত্তি করতে পারব। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক আছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত