প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘কোনো ব্যক্তি বা দলকে আঘাত করতে রাজনীতিতে আসছি না’

রাইজিংবিডি : দরজায় কড়া নাড়ছে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ। এর আগে ঘরের মাঠে আগামী মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডেতে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্বে দেওয়ার গুরুদায়িত্ব মাশরাফি বিন মুর্তজার কাঁধে। এমন সময়ে মাশরাফির রাজনীতির অঙ্গনে আসা নিয়ে চলছে তর্ক-বিতর্ক।

তার মতো একজন প্রিয় ব্যক্তিত্ব একটি বিশেষ দলের হয়ে লড়তে যাওয়ায় চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। তবে কোনো ব্যক্তি বা কোনো দলকে আঘাত করতে রাজনীতিতে আসছেন না বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের এ অধিনায়ক।

নড়াইল-২ আসন থেকে মাশরাফি বিন মুর্তজার নির্বাচন করা নিশ্চিত। মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার পর নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে মাশরাফি বলেন, ‘কোনো ব্যক্তি বা কোনো দলকে আঘাত করার জন্য আমি রাজনীতিতে আসছি না। যে যার আদর্শ নিয়ে সুন্দর জীবন-যাপন করবে, পারস্পরিক ভ্রাতৃত্ববোধে সহনশীল ও সহযোগিতাপূর্ণ রাজনৈতিক সংস্কৃতি বিরাজ করবে, সেটিই আমার চাওয়া।’

ভালো মানুষ হিসেবে যে খ্যাতি ছড়িয়ে, রাজনৈতিক অঙ্গনেও সেটা ছড়িয়ে দিতে চাইছেন মাশরাফি। সেই প্রত্যায় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ‘অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন, আমাদের মতো মানুষ কেন রাজনীতিতে আসবে! সত্যি বলতে, আমি জানি না, আমি কেমন মানুষ। ভালো মানুষ হিসেবে আমার যে পরিচিতি ছড়িয়েছে, সেটাও আমার ভেতর বারবার প্রশ্ন জাগিয়েছে, কেন আমি ভালো মানুষ? দুটি বল করে, আপনাদের কয়েকটি আনন্দের মূহুর্ত উপহার দিয়ে, দু’জনকে জড়িয়ে ধরেই যদি ভালো মানুষ হওয়া যায়, তাহলে স্রেফ এরকম ভালো মানুষ হওয়ার ইচ্ছা আমার কখনোই ছিল না। সত্যিকার অর্থেই আমি কেমন মানুষ, আমার বিশ্বাস, সেটি বিচার করার সময় সামনে। যদি আমি নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারি এবং আমার দল সরকার গঠন করে, তার পর আমার কর্মেই ফুটে উঠবে আমি কতটা ভালো মানুষ।’

হাটুতে একের পর এক অস্ত্রোপচার নিয়ে বাংলাদেশের মানুষ ও দলের জন্য বারবার বল হাতে তুলে নিয়েছেন মাশরাফি। বহু ম্যাচে বিচক্ষণ নেতৃত্ব দিয়ে সোনালী সময় নিয়ে এসেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটে। খেলার মাঠ ছেড়ে এবার রাজনীতির মাঠে তিনি। কাজটা কঠিন হলেও সেই চ্যালেঞ্জ নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে মাশরাফির বক্তব্য, ‘জানি, বলা যত সহজ, কাজ করে দেখানো তার চেয়ে অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। কিন্তু চ্যালেঞ্জটা নিতে আমি পিছপা হইনি। চাইলেই আমি নিজের সহজাত পরিবেশের ভেতর থাকতে পারতাম। কিন্তু আমি স্বপ্ন দেখি, আমার এলাকার মানুষ সমৃদ্ধির পথে আররেক ধাপ এগিয়ে যাক। আলো ছড়িয়ে পড়ুক নড়াইলবাসীর উপর। আমি চাই সমৃদ্ধ নড়াইল। সেই পথে আমার যত কষ্টই হোক, আমি থাকবো আমার প্রিয় নড়াইলবাসীর পাশে।’

ভালো মানুষের রাজনীতিতে আসা দরকার বলে মনে করেন মাশরাফি। রাজনীতিতে যোগ্য ও ভালো মানুষের আসার আহ্বান জানিয়ে নড়াইল এক্সপ্রেস বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের সব সচেতন, যোগ্য ও ভালো মানুষের রাজনীতিতে আসা উচিত। অনেকেই হয়তো সাহস করে উঠতে পারেননা নানা কারণে, মানসিক সীমাবদ্ধতায়। আমার মনে হয়েছে, মানসিক বাধার সেই দেয়াল ভাঙা জরুরি। তাই ভেতরের তাগিদ পূরণের উদ্যোগটা আমিই নিলাম। ক্রিকেটের মাঠে দেড় যুগ ধরে তিলতিল করে গড়ে ওঠা মাশরাফির অবস্থান হয়তো আজ অনেকের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে রাজনীতির মাঠে নামার কারণে। কিন্তু আমি নিজে সত্যিকার অর্থেই রোমাঞ্চিত নতুন কিছুর সম্ভাবনায়। আমি আশা করি এমন কিছু করতে পারব, যা দেখে ভবিষ্যতে হাজারও মাশরাফি এগিয়ে আসবে ইনশাল্লাহ।’

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ