প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাটকলের আধুনিকায়ন না হলে অর্থনৈতিক সম্ভাবনা কমবে

আদম মালেক : পাটশিল্পে অনেক সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও এটির ক্রমাগত অবনতি হয়েছে। পাটকলে যন্ত্রাংশ আধুনিকায়ন না হলে এর অর্থনৈতিক সম্ভাবনা কমে আসবে। সমস্যা উত্তরণে বেসরকারি ক্ষেত্রের সাফল্যকেও পাটখাতে কাজে লাগাতে হবে বলেন বিশেষজ্ঞরা।

রোববার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘পাটশিল্পের বর্তমান অবস্থা, সংকট ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক এক সেমিনারে তারা এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ (বিলস) এই সেমিনারের আয়োজন করে।

সেমিনারে অংশ নিয়ে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এম এম আকাশ বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারকে বিবেচনা করলে দেখা যায়, আমাদের পাটপণ্যের সাশ্রয়ী মূল্যে উৎপাদন করতে হবে। ভারতের তুলনায় আমাদের পাটপণ্যের রফতানি গত ছয় বছরে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ অগ্রগতিগুলোকে বিবেচনায় নিয়ে বাজারমূল্য ঠিকভাবে নির্ধারণ করতে হবে।

বাংলাদেশ পাটকল কর্পোরেশনের (বিজেএমসি) সাবেক মহাপরিচালক ও বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা ড. মোবারক আহমদ খান বলেন, বাংলাদেশে পাটকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেয়া হয় বলে দেশে পাটের ওপর একটি পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রণালয় রয়েছে। পলিথিনের কুপ্রভাব বুঝতে পেরেছে বলে বিশ্ববাজার এখন পলিথিন থেকে সরে আসার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছে।

বিলস’র ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান ভূঞার সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম মহাসচিব ও নির্বাহী পরিচালক মো. জাফরুল হাসানের সঞ্চালনায় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিলস উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সহিদুল্লা চৌধুরী। সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জুট স্পিনার্স অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব শহীদুল করিম, বিলস উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মো. আশরাফ হোসেন, মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের সভাপতি খলিলুর রহমান প্রমুখ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ