প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ত্যাগী নেতাদের প্রার্থী করার সক্ষমতা নেই আ.লীগ ও বিএনপির

মতিনুজ্জামান মিটু: জিডিপি বেড়েছে, দেশ এগিয়েছে। এই সঙ্গে বেড়েছে অর্থ ও সম্পদের পরিমাণও। কিন্তু আজও ত্যাগী ও প্রজ্ঞাবান নেতাদের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী করার সক্ষমতা অর্জন করেনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ অনেক দল। নির্বাচন এলেই নাকি টাকাওয়ালাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয় এসব দলের নেতা নেত্রীদের। এই নির্বাচনেও তার বাত্যয় ঘটেনি। এবারের জাতীয় নির্বাচনেও মনোনয়ন দেয়ার ব্যাপারে সেই বিত্তবানদের ঝোলার দিকেই নজর রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক ত্যাগী রাজনীতিক বলেছেন, এটা দুঃখজনক জাতীয় সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে সামান্য কিছু আসনেও ত্যাগী এবং প্রজ্ঞাবান নেতাদের মনোনয়ন দিয়ে আর্থিক দায় নেয়ার ক্ষমতা দল অর্জন করেনি। অথচ ইতিবাচক উদ্যোগ নিলে কোন টাকা না নিয়েই ত্যাগী ব্যাক্তিদের মনোনয়ন দিয়ে ভাল ফল ঘরে তোলার সক্ষমতা অর্জন করা সম্ভব।

যারা সত্যিকার অর্থে ত্যাগী এবং প্রজ্ঞাবান তাদের কাছে অর্থ না থাকাই স্বাভাবিক। আমরা জানি আমাদের দেশের মতো একটি সমাজ ব্যবস্থায় কি করে একজন মানুষের কাছে অঢেল অর্থ সঞ্চিত হয়। পরিস্কার জলের মতো সচ্ছ যে টাকা কিভাবে এক শ্রেণীর হাতে এসেছে। একথা নেতা নেত্রীদের অজানাও নয়। তবুও দলীয় তহবিলে দেশ ও দলের স্বার্থে নির্বাচন বাবদ কার্যকর ফান্ড গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়নি।

তিনি প্রশ্ন করে বলেন, নেত্রী কি পারেন না বিনা টাকায় দলের ত্যাগী, প্রজ্ঞাবান ও চৌকস নেতাদের মনোনয়ন দিয়ে পাশ করিয়ে আনার সাহস দেখাতে?
দলকে এই যোগ্যতা অর্জন করতে হবে যাতে নির্বাচনে জয়ের জন্য টাকাওয়ালাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে না হয়। এ ব্যাপারে দলকে স্বাবলম্বি হতে হবে। এই যোগ্যতা অর্জন করতে হবে যাতে আর নির্বাচনে প্রার্থী করা জন্য টাকা ওয়ালাদের দিকে তাকাতে না হয়। নির্বাচনের খরচের জন্য তো নয়ই, বরং প্রার্থী হওয়ার সময়ে ওই প্রার্থীর ব্যক্তিগত এবং সাংসারিক খরচের দায়ও দলকে নেয়া উচিত। তা হলেই দল টাকাওয়ালাদের খপ্পর থেকে দল, দেশ ও জাতিকে পাপচক্রের গ্রহ থেকে মুক্ত করতে পারবে।

শুধুমাত্র টাকার অভাবে দীর্ঘকালের ত্যাগী ও প্রজ্ঞাবান নেতারা মনোনয়ন পাবেন না, এটা হয়না। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের জন্যতো নয়ই। স্বাধীনতার এতো বছর পরেও মাত্র ৩০০ আসনে নির্বাচন করার মতো অর্থ দলগত ভাবে বহন করা সম্ভব হবেনা কেন?

নির্বাচন এলেই শুধু মাত্র অর্থের জন্য টাকাওয়ালাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে এটা এক ধরনের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্ব ছাড়া আর কিছুই নয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ