প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নর্থ জোন ও ইস্ট জোনের রান বন্যার ম্যাচ ড্র

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) ম্যাচে রাজশাহীতে মুখোমুখি হয়েছিল নর্থ জোন-ইস্ট জোন। এই ম্যাচে রানবন্যায় ভেসেছে দুই দলই। তবে শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে চতুর্থ দিন শেষে ম্যাচটির সমাপ্তি ঘটে ড্র দিয়েই।

বুধবার (২১ নবেম্বর) টস হেরে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে নাঈম ইসলাম ও অধিনায়ক জহুরুল ইসলামের সেঞ্চুরিতে ভর করে নর্থ ৪৪৫ রান তোলে নর্থ জোন। জবাবে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৪৪৩ রানের ইনিংস খেলে ইস্ট জোন। দুই ইনিংসে রানবন্যার পর দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে নর্থ জোন। তবে শনিবার (২৪ নভেম্বর) শেষ দিনে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৭০ রান তুলতেই ম্যাচটি ড্র ঘোষণা করা হয়।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় নর্থ জোন। তবে দ্বিতীয় উইকেটে জুনায়েদ সিদ্দিকীর সঙ্গে উইকেটে যোগ দেন ফরহাদ হোসেন। দু’জন মিলে ইনিংস বড় করতে থাকেন। তবে অর্ধশতক তোলার পর দলীয় ১২৩ রানে ব্যক্তিগত ৫১ রান নিয়ে ফেরেন জুনায়েদ সিদ্দিকী। এরপর ফরহাদের সঙ্গে জুটি গড়েন সাব্বির রহমান। ১২৮ বলে ১২ আর ও ১ ছক্কায় ১০৩ রানে অপরাজিত থেকেই মাঠ ছাড়েন ফরহাদ হোসেন। এরপর ম্যাচ ড্র ঘোষণা করা হয়।

এর আগে প্রথম ইনিংসে নর্থ জোনের নাঈম ইসলাম সর্বোচ্চ ১৩৭ রানের ইনিংস খেলেন। আর অধিনায়ক জহুরুল খেলেন ১০৪ রানের ইনিংস। এছাড়াও ওপেনার মিজানুর রহমান ৯২ রান করেন। এই তিন ব্যাটসম্যানের ব্যাটে ভর করেই প্রথম ইনিংসে সব উইকেট হারিয়ে ৪৪৫ রান তোলে নর্থ জোন। এরপর নিজেদের প্রথম উইকেটে ব্যাট করতে নেমে ইয়াসির আলীর ৯৪, অধিনায়ক ফরহাদ রেজার ৮৫, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ৬৪, ওপেনার রনি তালুকদারের ৫৪ এবং এনামুল হক জুনিয়রের ৫১ রানে ভর করে ৪৪৩ রান তোলে ইস্ট জোন।

নর্থ জোনের এবাদত হোসেন ও সানজামুল ইসলাম ৩টি করে উইকেট নেন। এছাড়াও জিয়াউর রহমান ২টি উইকেট নেন। শুভাশিস রায় ও শরিফুল ইসলাম ১টি করে উইকেট পান। ম্যাচসেরার পুরস্কার আসে নর্থ জোনের নাঈম ইসলামের হাতে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ