প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট কারচুপির প্রশ্ন অবান্তর, এটি বিরোধীদলের ইস্যু : সোহেল হায়দার

মো: মারুফুল আলম: ঢাকা সাংবাদিক ই্উনিয়নের (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী বলেছেন, নির্বাচন কমিশন বারবার বলেছে, ‘কিছু সুনির্দিষ্ট জায়গায় ইভিএম ব্যবহার হবে।’ তার মানে, পুরো সংসদীয় এলাকায় না। ৩টি, ৫টি বা সর্বোচ্চ ১০টি কেন্দ্রে ইভিএম থাকলো। তাও সব কেন্দ্রে না। কত ভোটইবা কারচুপি করা সম্ভব! ইভিএম নিয়ে বিতর্কটি আসলে বিরোধীদলের পক্ষ থেকে একটি ইস্যু। শুক্রবার ডিবিসি নিউজ এর টকশো’তে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সবাই মিলে নুতন প্রযুক্তির জায়গায় নিজেদের খাপ খাইয়ে নিতে কিছু সুনির্দিষ্ট আসনে ইভিএমটা চেষ্টা করে দেখতে অসুবিদা কী? ইভিএম তো ৩০০ আসনে ব্যবহার হচ্ছে না। ধরেন, ৩টি, ৫টি বা সর্বোচ্চ ১০টি আসনে ইভিএম থাকলো। সেখানে হয়তো ২০০০, ১৫০০ বা ১২০০ করে ভোট আছে। তাহলে কত ভোটইবা কারচুপি করা সম্ভব!

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন বর্জনের দিকে যাবে না কোনো দল। নির্বাচনই যদি বর্জন করতে হতো, বিএনপির মতো একটি বড় দল নিশ্চয়ই ড. কামাল হোসেন এর ছায়া নিতো না। নির্বাচনই যদি বর্জন করতে হতো ড. কামাল হোসেনরা জামায়াত এর মতো একটি দল বিএনপির সাথে থাকবে কি থাকবে না সেটা নিশ্চিত না হয়ে ঐক্য করতেন না। নির্বাচনই যদি বর্জন করতে হতো, মাহমুদুর রহমান মান্নারা কখনও ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করতেন না। সকল মহলই এই নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছে এবং ছোট বড় সব দলই থাকবে এই নির্বাচনে।
এমন একটি প্রতিদ্ব›িদ্বতামূলক নির্বাচনে ‘ইভিএম এর মাধ্যমে কারচুপি’ এবং ‘নির্বাচন কমিশনের ২০ শতাংশ নিরপেক্ষতা অর্জনে ব্যর্থ’ বক্তব্যগুলোকে সোহেল হায়দার বিরোধীদলের রাজনৈতিক বক্তব্য বলেই মন্তব্য করেন।

সোহেল হায়দার আরও বলেন, এবার ভোট খুব কঠিন হবে। একজন রাজনৈতিক রিপোর্টার হিসেবে আমার ধারণা, এবারে ভোটকেন্দ্রে প্রত্যেকটি দল এবং প্রত্যেকটি জোটের নেতাকর্মীরা গ্রæপ আকারে থাকবে। রেজাল্ট নিয়েই তারা বাড়ীতে ফিরবে। সে জায়গায়ও কিন্তু নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব আছে, সবাই যেন ভোটের রেজাল্ট এর পরে কোন ধরণের সহিংসতায় না জড়িয়ে সুস্থভাবে বাড়ী ফিরতে পারেন, নির্বাচন কমিশনকে সেটা নিশ্চিত করতে হবে।
অপর এক প্রশ্নের উত্তরে সোহেল হায়দার বলেন, এবারের নির্বাচনে চারটি জোটের মধ্যে লড়াই হবে। তিনটি জোট আওয়ামী লীগের দিকে চলে গেছে, সেই হিসেবে ভোটের লড়াইয়ে অংকের ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ এগিয়ে।  জামায়াত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তাদের বেশকিছু ভোট আছে। তবে তারা বড় রকমের ক্যারিশমা দেখাতে কখনও পারেনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ