প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জেলে থেকেই সাদী’কে ফোন করলেন মিলন! (ভিডিও)

রবিন আকরাম : সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আ ন ম এহছানুল হক মিলনের জামিন নামঞ্জুর করে তাঁকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। শুক্রবার দুপুরে এহছানুল হক মিলনকে চাঁদপুরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সফিউল আজমের আদালতে হাজির করা হয়। আদালত তাঁকে তিনটি মামলায় শোন অ্যারেস্ট দেখিয়ে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এদিকে জেলেখনা থেকে মিলন ও বিএনপি নেতা জাহিদ এফ সরদার সাদীর একটি ভিডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরপাক খাচ্ছে।  ‘জাহিদ এফ সরদার সাদী’র নামেই ফেসবুক পেজ থেকে ভিডিওটি আপ করা হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে- ফোন ধরে সাদী বলছেন, আসসালামুয়ালাইকুম মিলন ভাই। কি অবস্থা আপনার? আরে বাবা জেল সেলের ভিতর থেকে নাকি? হায় আল্লাহ। ভাবীর সাথে কথা হইছে। আপনি চিন্তা কইরেন না, ওনি চাঁদপুর যাচ্ছেন। আপনি নিজের দিকে লক্ষ্য রাখেন। তখন মিলন কথা না বলে আকার ইঙ্গিতে সাদীকে কিছু একটা বুঝাতে চেয়েছেন। মিলনের কথা না বুঝতে পেরে সাদী বলেন, আচ্ছা ঠিক আছে আপনার কথা বলতে হবে না। আপনি সহি-সালামতে থাকেন, নিজের দিকে লক্ষ্য রাখেন। ইনশাআল্লাহ একদিন হাসিনা সরকারের পতন হবে।

এছাড়াও সাদী তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তিনি লেখেছেন- সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ডঃ আ ন ম এহসানুল হক মিলনের সাথে যুক্তরাষ্ট্রে বিএনপির সাংগঠনিক প্রক্রিয়াতে আমিসহ অনেকের মতের পার্থক্য ছিল। প্রক্রিয়া থেমে গেলে আমার মতো অনেকে হয়ত খুশি হয়ে ছিলাম। রাজনীতিতে প্রতিযোগিতা আছে এবং থাকবে এটা স্বাভাবিক।

কিন্তু আজ হায়না হাসিনার কবলে এহসানুল হক মিলন ভাই, জেলের সেল থেকে আমাকে টেলিফোন করে ছিলেন। কথা হলো সবার দোয়া চেয়েছেন তিনি। আজকের এই দিনে আমরা সবাই জিয়ার সৈনিক। নিজস্ব মত পার্থক্যের চেয়ে দল বড়, দলের চেয়ে দেশ বড়। আমরা সবাই জিয়ার সৈনিক আর আমাদের  শিখিয়েছেন ঐক্যের চেয়ে বড় কিছু হতে পারে না সময়ের এই ক্লান্তিলগ্নে।

গ্রেফতারের পর তার সহধর্মিনী নাজমুন নাহার বেবীর সঙ্গে কথা হয়েছে। দুঃসময়ে প্রকৃত বন্ধুর পরিচয় পাওয়া যায়। এটাই সর্বজনীন স্বীকৃত।

আজ আমি জাহিদ এফ সরদার সাদী, আ ন ম এহসানুল হক মিলনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করছি। আমার ভাই জেলে কেন খুনি হাসিনা জবাব চাই!!!

বিঃদ্রঃ ভিডিওটি প্রমাণ রইল যে ওনি চাঁদপুরের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের জেল সেলে আছেন, সরকারের কোন অসৎ উদ্দেশ্য যাতে হাসিল না করতে পারে, সেই জন্য মিলন ভাই আমাকে ভিডিওটি করে জনসম্মুখে তা প্রকাশ করার জন্য অনুরোধ করেন।

প্রসঙ্গত, আ ন ম হছানুল হক মিলনের বিরুদ্ধে চাঁদপুরে আদালতে ভ্যানিটি ব্যাগ ছিনতাই মামলাসহ ২৮টি মামলা বিচারাধীন।

গত মঙ্গলবার চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ সরওয়ার আলমের আদালতে একটি জিআর মামলায় হাজির হওয়ার কথা থাকলেও, হাজির হননি তিনি।

মিলনকে গ্রেপ্তারের জন্য গত ছয়দিন ধরে চাঁদপুরের আদালত চত্বরে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। গতকাল সকাল থেকেও চাঁদপুর সদর পুলিশ সুপার (সার্কেল) জাহেদ পারভেজের নেতৃত্বে পুলিশ ও ডিবি পুলিশের কয়েকটি দল জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও জেলা জজ আদালতের প্রত্যেকটি প্রবেশ মুখ ঘিরে রাখে।

মিলনের আইনজীবী কামরুল ইসলাম বলেন, এভাবে আদালতের চতুর দিকে পুলিশ প্রহরা থাকলে মিলন কেন, কোনো আসামিই আদালতে ভয়ে ঢুকতে পারবেন না।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, বিদেশে যাওয়ার আগে সব মামলায় জামিনে ছিলেন মিলন। কিন্তু দীর্ঘদিন বিদেশে থাকার কারণে এসব মামলায় হাজিরা দিতে পারেননি। এ জন্য ২৬টি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

এদিকে আদালতে হাজিরার সময় নিরাপত্তা চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে আবেদন করেছেন আ ন ম এহসানুল হক মিলন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বরাবর একটি চিঠিতে তিনি এ আবেদন জানান। গত রোববার বিকেলে আত্মগোপনে থাকা মিলনের স্বাক্ষরিত চিঠিটি ইসিতে নিয়ে যান তার স্ত্রী নাজমুন্নাহার বেবি।

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুর-১ (কচুয়া) আসনে বিএনপির মনোনয়নপত্র কিনেছেন সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আ ন ম এহসানুল হক মিলন।

“জেলের সেল থেকে এহসানুল হক মিলন"

“জেলের সেল থেকে এহসানুল হক মিলনের সাথে সাদীর কথোপকথন”ব্রেকিং নিউজঃ সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ডঃ আ ন ম এহসানুল হক মিলনের সাথে যুক্তরাষ্ট্রে বিএনপির সাংগঠনিক প্রক্রিয়াতে আমি সহ অনেকের মতের পার্থক্য ছিল। প্রক্রিয়া থেমে গেলে আমার মতো অনেকে হয়ত খুশি হয়ে ছিলাম। রাজনিতিতে প্রতিযোগিতা আছে এবং থাকবে এটা স্বাভাবিক। কিন্তু আজ হায়না হাসিনার কবলে এহসানুল হক মিলন ভাই, জেলের সেল থেকে আমাকে টেলিফোন করে ছিলেন। কথা হলো সবার দোয়া চেয়েছেন তিনি। আজকের এই দিনে আমরা সবাই জিয়ার সৈনিক। নিজস্ব মত পার্থক্যের চেয়ে দল বড়, দলের চেয়ে দেশ বড়। আমরা সবাই জিয়ার সৈনিক আর আমাদের তারুণ্যের অহংকার দেশনায়ক আমাদের শিখিয়েছেন ঐক্যের চেয়ে বড় কিছু হতে পারে না সময়ের এই ক্লান্তিলগ্নে। গ্রেফতারের পর তার সহধর্মিনী নাজমুন নাহার বেবী’র সাথে কথা হয়েছে। দুঃসময়ে প্রকৃত বন্ধুর পরিচয় পাওয়া যায়। এটাই সর্বজনীন স্বীকৃত। আজ আমি জাহিদ এফ সরদার সাদী, আ ন ম এহসানুল হক মিলনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করছি। আমার ভাই জেলে কেন খুনি হাসিনা জবাব চাই!!!বিঃদ্রঃ ভিডিওটি প্রমান রইল যে ওনি চাঁদপুরের পুলিশ সুপারের কার্যালযের জেল সেলে আছেন, সরকারের কোন অসৎ উদ্দেশ্য যাতে হাসিল না করতে পারে, সেই জন্য মিলন ভাই আমাকে ভিডিওটি করে জনসম্মুখে তা প্রকাশ করার জন্য অনুরোধ করেন।গ্রেফতারের পর চাঁদপুরের জেল সেল থেকে মিলন এবং সাদী’র কথোপকথনের ভিডিওঃ

Posted by Zahid F Sarder Saddi – জাহিদ এফ সরদার সাদী on Thursday, November 22, 2018

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ