প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রা জ নী তি

জয় প্রকাশের ফেসবুক থেকে নেওয়া: ১. ভারসাম্য ব্যাপারটা রাজনীতিতে খুব জরুরী। আমার সব ভালো আর অন্যের সব মন্দ, এমনটা ঠিক নয়। সবাইকে আমার দল করতে হবে, এই চাওয়া ঠিক নয়। অন্য দল করা মাত্রই খারিজ করে দেয়া বা শত্রু বলে গণ্য করা মন্দ প্রবণতা। আবার রাজনীতির মূল্যায়ন করতে গিয়ে কেউ কেউ যখন সবাইকে সমান পাল্লায় মাপেন, সেটাও নড়বড়ে মূল্যায়ন। কেউ ভালো, কেউ মন্দ, কেউ বেশী ভালো, কেউ বেশী মন্দ। এমন নানা ধরণের দল ও ব্যক্তি রাজনীতিতে সক্রিয়। যেহেতু ভালো ও মন্দের সার্বজনীন সংজ্ঞার অভাব রয়েছে তাই চূড়ান্ত কথা না বলাই ভালো। নিজ নিজ বিবেচনায় যে ভালো, তার সাথে থাকা বা তাকে সমর্থন করা, তার ভালোর প্রশংসা করা, সবার সামনে ভালোটা তুলে ধরা এবং মন্দটার সমালোচনা করা আর তার পাশাপাশি অন্যের ভালোর প্রশংসা ও মন্দের সমালোচনা করা এবং অন্যের জন্য বিবেচনাবোধ সক্রিয় রাখার মধ্য দিয়ে ভারসাম্য বজায় রাখা সম্ভব। সেটা রাজনীতিবিদ, নেতা, কর্মী, সক্রিয় ও নিষ্ক্রিয় সমর্থক তথা সকলের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

২.
শুধু নিজ দল নির্মাণ নয়, বিপক্ষ কে হবে সেই ব্যাপারেও রাজনীবিদদের ভূমিকা থাকতে পারে। সেটা অনুগত বিপক্ষ নির্মাণের মধ্য দিয়ে নয়, সেটা হতে পারে একটা সাধারণ মান নির্ধারণ করার রাজনৈতিক-সামাজিক প্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে। সেক্ষেত্রে নিজেকেও সেই মানে উত্তীর্ণ করতে হবে এবং অন্যকেও সেই মানে আসার জন্য রাজনৈতিক-সামাজিক চাপ তৈরির বাস্তবতা নির্মাণ করতে হবে। এটাও রাজনীতির অংশ হওয়া উচিত। সারাক্ষণ নিজের গৃহ স্বাস্থ্যকর রাখার মধ্য দিয়ে রাজনীতিবিদদের দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় না। সর্বত্র স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করা না গেলে নিজের সুরক্ষিত ও স্বাস্থ্যকর গৃহের বাইরে ব্যাধির জন্ম হবে ও তাতে নিজেকেও আক্রান্ত হতে হবে।

৩.
আপনিও কমেন্টে আপনার মত লিখুন। পড়ার আগ্রহ রইলো। জানার ও বুঝার আগ্রহ রইলো। চিন্তার বিকাশ এমনকি পরিবর্তনেও তা ভূমিকা রাখতে পারে। তবে অনুগ্রহ করে কেউ কাউকে খারিজ করে বা তাচ্ছিল্য করে নয়। অন্যের জন্য সম্মান বজায় রেখে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত