প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আওয়ামী লীগের জনসমর্থন থাকলে তারেক রহমানকে  ভয় পেতো না : সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল

ফাহিম আহমাদ বিজয় : বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, আওয়ামী লীগের জনসমর্থন থাকলে তারেক রহমানকে ভয় পেতো না। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ গত দশ বছরে সবাইকে প্রতিপক্ষ ভাবতে ভাবতে এখন বুঝতে পেরেছে যে, তারা জনগণের শত্রু হিসেবে বিবেচিত এবং জনবিচ্ছিন্ন। এখন তারা ছায়া শত্রুর সাথে লড়াই করে। তারেক রহমানকেও ভয় পায়।

তারেক রহমান একজন তরুণ রাজনীতিক। নানা সমস্যা এবং মামলা-মোকদ্দমার কারণে বিদেশে অবস্থান করছেন। তারপরও যদি তার কন্ঠস্বরকে আওয়ামী লীগ এতো ভয় পায়, তাকে নিয়ে এতো বাড়াবাড়ি করে তাহলে তিনি বাংলাদেশে এলে আওয়ামী লীগের অবস্থা কী হবে?! তারা তো তখন হার্ট অ্যাটাক করবেন।

এক প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, তারেক আতঙ্কে এটা প্রমাণিত হয় যে, আওয়ামী লীগ এখন জনবিচ্ছিন্ন এবং দেউলিয়া হয়ে গেছে। তাদের রাজনৈতিক সম্পদ বলতে কিছু নেই। এ কারণে তারা অহেতুক আতঙ্কে ভুগছেন। যেকোনো কিছু শুনলেই তারা আতঙ্কিত হয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, তারেক রহমান এ দেশে জন্ম নিয়েছেন। তিনি এখানে রাজনীতি করেছেন। দলের নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলবেন, এটি নিয়ে তো আওয়ামী লীগের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আওয়ামী লীগ তো মনে করে তারা দেশে অনেক উন্নয়ন করেছে। দেশকে উন্ননের চরম শিখড়ে পৌঁছে দিয়েছেন। তাহলে তারেক রহমানকে নিয়ে তাদের এতো আতঙ্ক থাকবে কেন?

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগের যদি জনসমর্থন বেশি থাকতো, আওয়ামী লীগ নেতারা অনুভব করছেন, জনসমর্থন পুরোপুরি তাদের কাছ থেকে সরে গেছে। এজন্য সরকার তাদের প্রশাসন এবং সরকারি সমস্ত প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তারেক রহমানের কণ্ঠকে স্তব্ধ করার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্টের প্রচার-প্রচারণা কেমন চলছে, তা তো আপনারা দেখতেই পারছেন। আমাদের প্রার্থী মনোনয়ন বোর্ডে আসবেন কিন্তু পুলিশ তাকে ধরে নিয়ে গেছে। আমরা সংবাদ সম্মেলন করেছি, নির্বাচন কমিশনের কাছে তালিকাও দিয়েছি কিন্তু তারা লাশ দুদিন পরে বুড়িগঙ্গা নদীতে পাওয়া গেছে। তিনি যশোরের আবু বকর। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাকে ধরে নিয়ে গিয়েছিলো এবং তাদের হেফাজতেই তার মৃত্যু হয়েছে। আমাদের সাবেক প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলনকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন থেকে নিষেধ করা সত্তেও গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে। আমাদের কেউ মাঠ পর্যায়ে যেতেই পারছেন না, হামলা-মামলা এবং পুলিশি নির্যাতনের ভয়ে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ