Skip to main content

চিনি কলের খামারে সুগারবিট চাষের উদ্যোগ

মতিনুজ্জামান মিটু : দেশে প্রথমবারের মতো শীত প্রধান দেশের এই ফসল চাষের কর্মসূচি নিয়েছে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশের ১৫ টি সুগার মিল জোনের ১৪ টি’র খামারে প্রথম বারের মতো এই চাষ করা হচ্ছে। কর্পোরেশনের চিপ (কেন প্রোডাকশন অ্যান্ড এক্সটেনশন) কৃষিবিদ আখতার হোসেন বলেন, আখ ১২ থেকে ১৪ মাস লাগলেও সুগার বিটে চাষে লাগে ৫ থেকে ৬ মাস। সুগার বিট মূলত শীত প্রধান দেশের ফসল হলেও আমাদের আবহাওয়ায় সুগার বিট আবাদের চেষ্টা চলছে বেশ কিছু কাল ধরে। এই ফসল চাষের সম্ভাব্যতা যাচাই ও সম্প্রসারণের জন্য গবেষণা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সুগারক্রপ গণেষণা ইনস্টিটিউট (বিএসআরআই) ২০১১ সাল থেকে ২০১৪ সাল মেয়াদে একটি পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়ন করে। গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে বিএসআরআই-১(সুভ্রা) ও বিএসআরআই-১(কাভেরী) নামের সুগার বিটের জাত এ দেশে চাষের অনুমোদন দিয়েছে। বাংলাদেশের লবনাক্ত অঞ্চলে এই ফসল ভাল হচ্ছে বলে জানা গেছে। বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন এ যাবত না করলেও এখন গুরুত্ব বিবেচনায় এই ফসল চাষের জন্য একটি পাইলট কর্মসূচি নিয়েছে। পাবনা সুগার মিল জোন বাদে দেশের বাকী ১৪ টি চিনি কলের খামারের প্রতিটিতে ৫০ শতক করে মোট ৭ একর জমিতে পরীক্ষা মূলক ভাবে সুগার বিট চাষ করছে। এই চাষের জন্য সুগার বিটের যে পরিমাণ বীজ লাগবে তা কৃষি মন্ত্রণালয় দেবে।

অন্যান্য সংবাদ