প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যবসায়ী হিসেবে আত্মপ্রকাশ মুসাফির খ্যাত নায়িকা জেনিফার

আবু সুফিয়ান রতন : প্রথমে কয়েকটি গানের মডেল হয়ে পরিচিতি পেয়েছিলেন মারজান জেনিফা। এরপর মডেল থেকে সরাসরি নায়িকা। আরেফিন শুভর বিপরীতে ‘মুসাফির’ ছবিতে অভিনয় করে আলোচনায় চলে আসেন জেনিফা।

পরের বছর মুসাফির ছবির প্রযোজক জুবায়ের আলমকে বিয়ে করে অভিনয় থেকে সরে গিয়েছিলেন। তবে ফিরছেন খুব শিগগিরই এমনটা জানালেন জেনিফা নিজেই।

নতুন খবর হলো, ব্যবসায়ী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন মুসাফির খ্যাত এ নায়িকা। মঙ্গলবার রাজধানীর গুলশানে পুলিশ প্লাজা শপিং মলে চালু করেছেন তার স্বপ্নের ফ্যাশন হাউজ । অত্যন্ত জাঁকজমক আর আড়ম্বরতাপূর্ণ ‘মারজান জেনিফা : দ্য ফ্যাশন হাউজ’ এর উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে শোবিজ অঙ্গনের অনেক তারকাই উপস্হিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, দেবাশীষ বিশ্বাস, অনন্য মামুন, রফিক শিকদার, সাইফ চন্দন, চিত্রনায়ক নীরব, অভিনেতা মাজনুন মিজান প্রমুখ।

নিজের নতুন পরিচয় প্রসঙ্গে মারজান জেনিফা বলেন, ‘স্বপ্নগুলো বাস্তবায়িত করার অনুভুতি সত্যিই অসাধারণ। স্বপ্ন দেখেছিলাম এমন কিছু একটা করবো; সেটা পূরণ করতে পেরে খুবই ভাল লাগছে। অনেক চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে আমার স্বপ্নের প্রতিষ্ঠানের পথ চলা শুরু হল। এটাকে দিনদিন আরো উন্নত ও সমৃদ্ধ করার জন্য এখন থেকে কাজ করে যাবো। নিজের ভালবাসার এই প্রতিষ্ঠানটিকে যেন তার নিজের পরিচয়ে সবার মাঝে পরিচিত করতে পারি, তাই সবার কাছে দোয়া প্রার্থী।’

স্বপ্নপূরণ প্রসঙ্গে মারজানের স্বামী ঢাবি শিক্ষক জোবায়ের আলম বলেন, ‘নতুন নতুন সৃষ্টিশীল কাজে নিজেকে নিয়োজিত করতে জেনিফা সবসময়ই আগ্রহী। দেশের বাইরে ছুটি কাটাতে গিয়ে এই আইডিয়াটা মাথায় আসে। তারপর সেটা বাস্তবায়ন হল। জেনিফার স্বপ্নপূরণে পাশে থাকতে পেরে নিজেকে আজ ধন্য মনে হচ্ছে। শুধু এই স্বপ্নের শুরুতেই নয়, জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে, প্রতিটি ঘটনায় সর্বক্ষণ ওর পাশে থাকতে চাই। ওর স্বপ্নগুলোকে বাস্তবে রূপ দিতে পাশে আছি সবসময়।’

এছাড়াও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, দেবাশীষ বিশ্বাস, চিত্রনায়ক নীরব ও বেশ ক’জন শিল্প ব্যক্তিত্ব প্রতিষ্ঠানের মঙ্গল ও উত্তরোত্তর শ্রীবৃদ্ধি কামনা করেন।

এদিকে ‘এম জে ফ্যাশন’ নামে একটি অনলাইন শপ আছে জেনিফারের। খুলেছিলেন আরও একবছর আগে। এছাড়াও চট্টগ্রামে একটি বিউটি পার্লার রয়েছে তার ‘হ্যাপী বিউটি পার্লার’ নামে। আগামীতে চট্টগ্রামে আরও একটি ফ্যাশন হাউজ খোলার চিন্তা আছে জেনিফার।

মারজান জেনিফা বলেন, আমি প্রচুর ঘোরাঘুরি করি দেশে ও দেশের বাইরে। আর অনেক বেশি শপিং করি সবসময়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নামীদামী পণ্য সংগ্রহ করে সেগুলো বিক্রি করবো আমার ফ্যাশন হাউজে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ