প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নওগাঁ-৬ আসন থেকে আলমগীর কবীরকে বিএনপির অবাঞ্চিত ঘোষনা

আশরাফুল নয়ন, নওগাঁ প্রতিনিধি: সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবীরকে নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রানীনগর) আসন থেকে এ দুই উপজেলার বিএনপি ও তার অঙ্গসংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ অবাঞ্চিত ঘোষণা করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা বিএনপি’র দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে রানীনগর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ও রানীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম আল ফারুক জেমস দুই উপজেলার বিএনপি ও তার সকল অঙ্গসংগঠনের পক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আল ফারুক জেমস বলেন, বর্তমান অগণতান্ত্রিক সরকারের আন্দোলন-সংগ্রাম, জেল-জুলুম ও মামলা-হামলার তোয়াক্কা না করেও আত্রাই-রানীনগরের বিএনপির পক্ষে জনমত তৈরি করেন বর্তমান বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন (বুলু)। আলমগীর কবীর গত ২০০১ সালে বিএনপির প্রার্থী হিসাবে বিজয়ী হয়ে প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পর সরকারের শেষ সময়ে এসে সর্বহারা-জেএমবির মাধ্যমে আত্রাই-রাণীনগরকে রক্তাক্ত জনপদে পরিণত করেন।

বিএনপিকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে ১/১১ এর কুশিলবদের সঙ্গে আঁতাত করে বিএনপিকে চাকর-বাকরের সংগঠন হিসেবে অবহিত করে মিথ্যা তথ্য দিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে দল ত্যাগ করে এলডিপিতে যোগ দেন। পরবর্তিতে এলডিপির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হলে এলডিপি ত্যাগ করেন তিনি।

দীর্ঘ ১২ বছর তার অনুপস্তিতিতে নতুন ভোটার ও রাজনৈতিক কর্মীদের কাছে তিনি অপরিচিত হয়ে পড়েছেন। অন্যদিকে আওয়ামলীগের সাথে তার গোপন আঁতাতের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসায় স্থানীয় জাতীয়তাবাদী শক্তির কাছে তিনি পরিণত হয়েছেন বিশ্বাসঘাতকতার প্রতীকে। আলমগীর কবীরের দলে ফেরার বিষয়টি স্থানীয় পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। এমতাবস্থায় আত্রাই ও রানীনগর বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখার স্বার্থে আলমগীর কবীরকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, রানীনগর উপজেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রবিউল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক প্রভাষক একেএম জাকির হোসেন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, রোকনুজ্জামান খাঁন রুকু, এএইচএম নয়ন খাঁন লুলু, যুবদলের সভাপতি এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মোজাক্কির হোসেন, আত্রাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল মান্নান, আব্দুল হাকিমসহ দুই উপজেলার বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ।

এ বিষয়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবীবের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি পরে কথা বললেন বলে জানান।#

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ