Skip to main content

রাজধানীতে গ্রীল কাটা চোর চক্রের প্রধানসহ আটক ৪

সুজন কৈরী : রাজধানীতে গ্রীলকাটা চোর চক্রের প্রধানসহ ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। আটককৃতরা হলো- চক্রের প্রধান মো. হযরত আলী ওরফে রকি (৩২), মো. শাহিন (২৫) ও মো. সগির ওরফে রাজু (২৭)। বুধবার রাতে মিরপুরের মনিপুর স্কুল এন্ড কলেজের সামনে থেকে চোরাই মালামাল ক্রয়-বিক্রয় কালে পিবিআই ঢাকা মেট্রোর একটি বিশেষ টিম তাদের আটক করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে লেপটপ, কম্পিউটার হার্ডডিক্স, মোবাইল ফোনসেটসহ বেশ কিছু চোরাই মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া পৃথক ঘটনায় ভাটারা এলাকা থেকে শিপন নামের একগ্রীল কাটা চোর চক্রের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পিবিআই জানায়, মিরপুর-২ নম্বরের বড়বাগ এলাকার নিবাসী জনৈক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ মিরপুর মডেল থানায় একটি মামলা (নং-৩১) করেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, গত ১৫ অক্টোবর সকালে ঘুম থেকে জেগে তার স্ত্রী হাসিনা আক্তার পান্না তার ব্যবহৃত স্যামসাং নোট-৫ মোবাইল ফোন না পেয়ে খোঁজ করতে থাকে। এ সময় পাশের রুমে ঘুমিয়ে থাকা তার মেয়ে সিদরাতুজ সাবা বুশরা জাগার পর দেখে যে তার ব্যবহৃত স্যামসাং এস-৬ মোবাইলটি নেই। ফরিদ উদ্দিন খোঁজ করে দেখতে পান যে, বাসার মাঝ খানের রুমের জানালার গ্রীল কাটা। ওই রাতে ফরিদ উদ্দিনের ছেলে তৌফিক উদ্দিন আহমেদ অনিক বাসায় না থাকায় তার রুমটি ফাঁকা ছিল। পরে ফরিদ উদ্দিন বুঝতে পারেন অজ্ঞাতনামা চোর বা চোরেরা জানালার গ্রীল কেটে ঘরে প্রবেশ করে ১৪ অক্টোবর দিবাগত রাতের কোন এক সময় তার বাসা থেকে ১ টি এ্যাপল (ম্যাক বুক), ১টি আসুস ল্যাপটপ, ১টি স্যামসাং নোট-৫ মোবাইল ফোন, ১টি স্যামসাং এস-৬ মোবাইল ফোন, ১টি পোর্টেবল হার্ডডিক্স ও নগদ ৫হাজার টাকাসহ মোট আড়াই লাখ টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। পিবিআই ঢাকা মেট্রোর বিশেষ পুলিশ সুপার মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার বাসা বাড়ি টার্গেট করে রাতের অন্ধকারে সেনেটারী পাইপ/জানালার কার্নিসের উপর ভর করে উপরে উঠে বিভিন্ন তলার গ্রীল কেটে নগদ টাকা, স্বর্ণ অলংকারসহ মূল্যবান সামগ্রী চুরি করে নিয়ে যায়। চক্রটি রাজধানীর অসংখ্য বাসা বাড়ির গ্রীল কেটে মুল্যবান সামগ্রী চুরি করেছে জানিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। চোরাইকৃত মোবাইল ফোন এবং ল্যাপটপ রাজধানীর অভিজাত এলাকার বেশ কিছুু মার্কেটে বিক্রি করে। তিনি আরো জানান, চক্রের সদস্যদের দেওয়া তথ্যে চোরাই মালামাল ক্রয় বিক্রয়ের সঙ্গে জড়িত অভিজাত এলাকার একাধিক দোকান মালিকদের সর্ম্পকে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। চক্রটির বিরুদ্ধে রাজধানীর দারুস সালামসহ একাধিক থানায় বেশ কয়েকটি চুরির মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ইতিমধ্যে এ চক্রের আরো কয়েক সদস্যকে চিহ্নিত করা গেছে।তাদেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এদিকে ভাটারার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে গ্রীল চোর চক্রের সদস্য শিপন ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার কাছ থেকে একটি পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলি, ল্যপটপ, আই ফোন ও টেলিভিশন উদ্ধার বরা হয়েছে। ভাটারা থানার এসআই মিজানুর রহমান বলেন, শিপনের বিরুদ্ধে থানায় ৪টি মামলা রয়েছে। অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় অস্ত্র আইনে একটি ও চুরির ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। শিপন বসুন্ধরা এলাকার গ্রীল কাটা চোর চক্রের প্রধান। সে গ্রীল কেটে বাসায় ঢুকে অস্ত্র প্রদর্শন করে চুরি করতো। তাকে ১০দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

অন্যান্য সংবাদ