Skip to main content

আ স ম ফিরোজ নির্বাচন করতে পারবেন না বললেন রিটকারীর আইনজীবী

এস এম নূর মোহাম্মদ : সুদ মওকুফের পর সোনালী ব্যাংক থেকে আ স ম ফিরোজের ২৭ কোটি টাকা ঋণ পুনঃ তফসিলের সর্বশেষ সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। এ সংক্রান্ত রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এর আগে পটুয়াখালীর বাউফল পৌরসভার মেয়র জিয়াউল হক রিটটি দায়ের করেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও এম মাইনুল ইসলাম। হাইকোর্টের এই আদেশের ফলে আ স ম ফিরোজ এখন ঋণখেলাপি বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারীপক্ষের আইনজীবী। তাঁর ভাষ্য, হাইকোর্টের আজকের আদেশের ফলে আ স ম ফিরোজ আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না। আ স ম ফিরোজ পটুয়াখালী-২ আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ। পটুয়াখালীর বাউফল পৌরসভার মেয়র জিয়াউল হক চলতি সপ্তাহে হাইকোর্টে রিটটি করেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও এম মাইনুল ইসলাম। পরে আইনজীবী মাইনুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, আইনে আছে, তিনবারের বেশি ঋণ পুনঃ তফসিল করা যাবে না। আ স ম ফিরোজের ক্ষেত্রে আইনের তোয়াক্কা না করে ২০১৮ সালে নবমবারের মতো তাঁর প্রায় ২৭ কোটি টাকার ঋণ পুনঃ তফসিল করা হয়। এই সিদ্ধান্ত হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়। আইনজীবী মাইনুল ইসলাম বলেন, ঋণ পুনঃ তফসিলের সিদ্ধান্ত হাইকোর্ট স্থগিত করায় আ স ম ফিরোজ এখন ঋণখেলাপি। তিনি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।