Skip to main content

‘অভিযোজনের জন্য আড়াই বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন’

তরিকুল ইসলাম সুমন: বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত সবুজ জলবায়ু তহবিল (জিসিএফ)- এর আওতায় মাত্র ৮৫ মিলিয়ন ডলার তহবিল অনুমোদন পেয়েছে। ২০১৩ সাল হতে শিল্পোন্নত দেশসমূহ বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন রেজিলিয়েন্স তহবিল (বিসিসিআরেএফ) এ নতুন কোনও অর্থায়ন করেনি। অথচ শুধুমাত্র অভিযোজনের জন্যই বাংলাদেশের প্রতিবছর কমপক্ষে ২.৫ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন। বৃহস্পতিবার টিআইবি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন টিআইবি এর নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। সংবাদ সম্মেলনে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্ত উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ‘দূষণ বৃদ্ধিকারী’ উন্নত রাষ্ট্রগুলোর কাছ থেকে অর্থ আদায়ে বাংলাদেশের দর কষাকষি ও সমঝোতা দক্ষতার অভাব রয়েছে। ফলে আমরা জালবায়ু ক্ষতির অর্থ আদায় করতে পারছি না বলে জানিয়েছেন তিনি বলেন, ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানের উন্নত দেশগুলো প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে। তবে সবুজ জলবায়ু তহবিল (জিসিএফ)- এর আওতায় থাকা সাতটি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক মহলে অর্থ আদায়ের জন্য দরকষাকষির সংক্রান্ত দক্ষতার অভাব রয়েছে। পোল্যান্ডের কাতোভিতসেতে আসন্ন কপ-২৪ সম্মেলনে প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা কাঠামো সম্বলিত চূড়ান্ত রূপরেখা প্রণয়ন ও প্রতিশ্রুত জলবায়ু অর্থায়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি নিশ্চিতের দাবিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে টিআইবি। টিআইবির পক্ষ থেকে জিসিএফ থেকে প্রয়োজনীয় তহবিল পাবার জন্য জাতীয় বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান (এনআইই) হিসেবে বাংলাদেশের ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি (ইডকল) এবং পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনকে (পিকেএসএফ) সক্রিয় হবার আহ্বান জানানো হয়।

অন্যান্য সংবাদ