প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরিশাল-৬ আসনে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী আপন তিন ভাই

শাকিল আহমেদ : বরিশাল ৬ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয় প্রত্যাশী আপন তিন ভাই। এরা হলেন বাকেরগঞ্জ থানার ৬নং ফরিদপুর ইউনিয়নের মরহুম শামসুল হক সিকদারের ছেলে নুরুল হক অসীম, ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল হক (মঞ্জু) ও এনামুল হক আবির। তবে যেই মনোনয়ন পাক না কেন তাতে কোনো ভাইয়েরই আপত্তি নেই বলে জানিয়েছেন তিন ভাই।

আসন্ন জাতীয় একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে ইতোমধ্যে দৌড়ঝাপ শুরু করেছে প্রার্থীরা। বড় দুই দল বিএনপি ও আ.লীগের কোনো কোনো আসনে একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন ফর্ম সংগ্রহ করেছেন। তবে বরিশাল-৬ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন জমা দিয়ে তৃর্নমুলে আলোচনায় উঠে এসেছেন এই তিন সহোদর।

এদের প্রত্যেকেরই রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন রাজনৈতিক পরিচয়। এদের মধ্যে বড় ভাই নুরুল হক অসীম ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি। এছাড়া বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপ-কমিটির সদস্য ছিলেন।

মেঝ ভাই ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল হক (মঞ্জু) বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্সের বর্তমান ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং বুয়েট ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। তাছাড়া বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ছিলেন।

অন্যদিকে সবার ছোট ভাই এনামুল হক আবির ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জসীম উদ্দিন হল ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন-সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। আ. লীগের রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক উপ-কমিটির সদস্যও ছিলেন।

২ লাখ ৪৫ হাজার ৫২৫ ভোটার নিয়ে গঠিত বরিশাল ৬ আসন। তবে এ আসনটি নিয়ে রয়েছে জটিল সমীকরণ। গত ১০ বছর আসনটি মহাজোটের শরিক দল জাপার দখলে রয়েছে। এই আসনে বর্তমান এমপি জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের স্ত্রী রতনা আমিন। মহাজোট থেকে এবারও আসনটি তারই পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে। তবে এবারের নির্বাচনে এ আসনটিতে আ.লীগের প্রার্থী দিতে কেন্দ্রের কাছে তৃণমূল নেতারা দাবি জানিয়ে আসছেন।

তাদের দাবি, এ আসনে যেন আ. লীগের প্রার্থী দেয়া হয়। কারণ গত ১০ বছরে এই এলাকায় তেমন কোন উন্নয়নমূলক কাজ হয়নি। তাই আওয়ামী লীগ থেকে যাকে মনোনয়ন দিবে আমরা তার জন্য কাজ করবো। এই আসনে আওয়ামী লীগের তৃণমূল থেকে আলোচনায় এগিয়ে রয়েছেন মেজর জেনারেল হাফিজ মল্লিক ও তরুণ নেতা- প্রকৌশলী মঞ্জুরুল হক মঞ্জু।

এদিকে একই পরিবাররের পক্ষ থেকে একসঙ্গে তিন ভাইয়ের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করায় বাকেরগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন নেতা-কর্মী, ও সমর্থকরা আনন্দ মিছিল করেছে। নেতা-কর্মী ও সাধারণ ভোটাররা মনে করেন, সবদিক থেকে প্রকৌশলী মঞ্জুরুল হক (মঞ্জু) একজন যোগ্য প্রার্থী। কারণ তিনি রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। ছাত্র রাজনীতি থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায়ের রাজনীতি করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে তার। তাই তিনি মনোনয়ন পেলে বাকেরগঞ্জবাসির জন্য ভালো কিছু করতে পারবেন। তাই সর্ব মহলের একটাই চাওয়া, তিন ভাইয়ের যে কোন একজনকে যেন আ. লীগের মনোনয়ন দেওয়া হয়।

মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জু বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আমার রাজনৈতিক আদর্শ। জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের জন্য আমি রাজনীতি করি। আমরা তিন ভাই ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি। আমরা যখন ছাত্রলীগ করেছি তখনকার ছাত্রলীগ আর আজকের ছাত্রলীগের মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। ৮০ এবং ৯০ দশকে ছাত্রলীগের অবস্থা খুব একটা ভালো ছিলো না। তখন আমদের অনেক জুলুম নির্যাতন সহ্য করে রাজনীতি করতে হয়েছে। অনেকবার মামলা-হামলার শিকার হয়েছি। কিন্তু দলের বাইরে কিছু ভাবতে পারিনি। বাকেরগঞ্জ এর জনসাধারণ আমার প্রতি আস্থাশীল, জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে সুযোগ দেন তাহলে আমিও সাধারণ মানুষের এ বিশ্বাস, ভালোবাসা ও আস্থার মূল্য দিতে চেষ্টা করবো। মনোনয়নের বিষয় এখনো কিছু বলা যাচ্ছে না। যদি দল থেকে তরুনদের মূল্যায়ন করা হয়, তাহলে আমি আশাবাদী। আর যদি কোন কারনে মনোনয়ন না পাই তাহলেও প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আস্থা রেখে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নেব। এবং দলের বিজয়ের জন্য কাজ করবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ