প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যাপক অনিয়ম ধরা পড়েছে নওগাঁর আবাসন প্রকল্প নির্মাণে

কান্তা আইচ রায় : ভূমিহীনদের জন্য নওগাঁয় আবাসন প্রকল্প নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নির্মাণ করা ঘরগুলো ব্যবহার করতে না পারায় বেশির ভাগ উপকারভোগী আবাসন ছেড়ে চলে গেছেন। যারা আছেন পর্যাপ্ত সুযোগ না পাওয়ায় নানা সংকটে দিন পার করছেন । ভুক্তভোগীরা বলছেন, প্রকল্প নির্মাণ থেকে শুরু করে প্রকৃত ভূমিহীন নির্বাচনে বড় ধরনের অনিয়মের কারণে সরকারের লক্ষ্য অনেকটাই বিফলে গেছে । উপজেলা প্রশাসন বলছে, ভূমিহীনদের প্রকল্প ছেড়ে যাওয়ার কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে । সূত্র : সময় টিভি

নওগাঁর বদলগাছীর বনগ্রাম এলাকায় মাঠের মাঝখানে গড়ে তোলা হয়েছে ভূমিহীনদের জন্য আবাসন প্রকল্প। এখানে ৫২টি শেডের মাধ্যমে ২৭০টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। কাগজপত্রে ২৭০টি ঘরেই উপকারভোগী দেখানো হলেও বাস্তবে আছে মাত্র ৮০ জন। ২০১৩ সালে এ আবাসন প্রকল্পটি চালু করার পর নানা সমস্যায় ঘর ছেড়েছেন এর উপকারভোগীরা। বর্তমানে ফাঁকা পড়ে আছে ২শ টি ঘর। প্রকল্প নির্মাণে নানা অনিয়মসহ প্রকৃত ভূমিহীন নির্বাচন নিয়ে রয়েছে নানা অভিযোগ।

ভ‚মিহীনরা বলেন, ‘স্কুল, গোরস্থান নেই। যদি আমরা বলি, তখন তারা জানায়, এখানে কোন বাজেট নেই।’ তারা বলেন, ‘এখানে কোন রাস্তা নেই। বর্ষা নামলে কাদায় হাঁটা যায় না।’ উপকারভোগীদের অভিযোগ, ঘরগুলো নির্মাণের কিছু দিন পরই টিন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টিতে ঘরে পানি পড়ে । তা ছাড়া মেঝে প্লাস্টার করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি । এতে করে সাপ ও ইঁদুর এসব ঘরে গর্ত করায় শঙ্কায় থাকেন। নষ্ট হয়ে গেছে বেশির ভাগ টয়লেটসহ যোগাযোগ ব্যবস্থা। তা ছাড়া এখানে স্কুল না থাকায় ছেলে মেয়েদের পড়া লেখা করাতে পারছেন না। ভূমিহীনরা বলেন, ‘ঘরগুলো ছোট ছোট। ঘরের মেঝে পাকা না। এখানে সাপে ভরপুর। টিনে জং ধরেছে। ফুটো হয়ে গেছে টিনের চাল। বৃষ্টির পানি পড়ে।’

সঠিক জায়গা নির্বাচন না করা সহ আবাসন প্রকল্পটি নির্মাণে নানা অনিয়মের অভিযোগ করলেন খোদ উপজেলা জনপ্রতিনিধি। নওগাঁর বদলগাছীর উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা অলি আহম্মেদ রুমি চৌধুরী বলেন, ‘তদন্ত হওয়া উচিত। ঘরগুলো যারা পেয়েছে, তারাই আসলে পাবার উপযুক্ত কিনা। যদি না হয় তাহলে তাদের বাতিল করে দিয়ে, যারা সত্যিকারের ছিন্নমূল তাদের সেখানে ঘর দেওয়া উচিত।’

তবে আবাসন প্রকল্পটি বাস উপযোগী করা সহ প্রকৃত ভূমিহীনদের নানা সুযোগ সুবিধার জন্য প্রশাসন কাজ করছে বলে জানান উপজেলার শীর্ষ এ কর্মকর্তা । নওগাঁর বদলগাছীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম আলী বেগ বলেন, ‘সব কর্মকর্তাই সেখানে গিয়েছিলাম। তাদের সমস্যা কি, কিভাবে এই সমস্যা সমাধান করা যায় তা নিয়ে কথা হয়েছে। যারা সেখানে থাকে না তাদের বন্দোবস্থ প্রস্তাবটা বাতিল করার চেষ্টা করছি।’ ২০১৩ সালে কাবিখা প্রকল্পের আওতায় মাটি ভরাট করে সড়ক নির্মাণ এবং প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় ২৭০টি ঘর তৈরি করা হয়।