প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্বর্ণ ও তামা খনিতে কার্যক্রম বৃদ্ধি করছে ইরান

রাশিদ রিয়াজ : মার্কিন অবরোধ সত্ত্বেও ইরানের ব্যাংকগুলো দেশটির স্বর্ণ ও তামা খনিতে বিনিয়োগ বাড়াতে যাচ্ছে। ইরানের তেল রফতানি গত বছর ৪০.১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে যাবার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দেশটির ওপর চলতি মাসে ফের অবরোধ আরোপ করে বসে। এধরনের পরিস্থিতির মধ্যেও অন্তত ৬টি স্বর্ণ ও তামা খনিতে ইরানের ব্যাংকগুলো নতুন করে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে যা দেশটির অর্থনৈতিক গতির এক অব্যাহত ধারা হিসেবে বিবেচিত করছে রুশ বার্তা সংস্থা স্পুটনিক ইন্টারন্যাশনাল।

স্পুটনিকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ইরানের স্বর্ণ ও তামা খনিতে নতুন করে বিনিয়োগে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে। যা অর্থনীতিতে গতি আরো বাড়াতে সাহায্য করবে। অন্যদিকে একের পর এক মার্কিন অবরোধ ইরানের অর্থনীতিতে তেমন কোনো অচলায়তন সৃষ্টি যে করতে পারছে না বা তেল রফতানিও দেশটির বন্ধ হয়ে যায়নি তাও এক বিস্ময়ের ব্যাপার।

ইরানের সঙ্গে বিদেশি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যবসা নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হলে দেশটি ইউরোপ ও বিভিন্ন দেশের সঙ্গে বিকল্প লেনদেন ব্যবস্থা করতে অনেকটা সমর্থ হয়েছে। তেহরান টাইমস’এর একটি খবরে বলা হচ্ছে সর্বশেষ খনিজ সম্পদ আহরনে যে বিনিয়োগ হচ্ছে তা দেশটির প্রতিরোধ অর্থনীতির বড় এক উদ্যোগ ও দক্ষতা।

এসব খনিজ সম্পদ আহরনে বিনিয়োগ হবে ইস্পাহান, পূর্ব-দক্ষিণ খোরাসান প্রদেশ ও পূর্ব ও পশ্চিম আজারবাইজান প্রদেশ। প্রতি বছরে ইরানে স্বর্ণের চাহিদা বাড়ছে ২’শ শতাংশ হারে যা পরিমানের দিক থেকে দাঁড়িয়েছে ১৫.২ মেট্রিক টন। যা গত চার বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। ব্যাপক চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে স্বর্ণ মুদ্রারও। ওয়াল্ড গোল্ড কাউন্সিল বলছে বিষয়টি ইরানের অর্থনীতির জন্যে ইতিবাচক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ