প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাতীয় নির্বাচনের আগে দল বদলের হিড়িক

হ্যাপি আক্তার : আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দল বদলের হিড়িক পড়েছে রাজনীতির মাঠে। ঐক্যফ্রন্টের হয়ে নির্বাচনী লড়াইয়ে ঘোষণা দিয়ে চমকে দিয়েছেন অনেকেই। আওয়ামী লীগের রাজনীতিবিদ এখন বিরোধী শিবির বিএনপি কিংবা ঐক্যফ্রন্টে। বিএনপির পরিচিত মুখ যোগ দিয়েছেন আওয়ামী লীগে অথবা দলটির এখনকার মিত্র বিকল্পধারায়। বিশ্লেষকরা মনে করেন, ব্যক্তিগত চাওয়া-পাওয়ার আশায় দল বদল করছেন রাজনীতিবিদরা।

ভোটে রাজনৈতিক দলের প্রার্থী হলে অন্তত ৩ বছর সংশ্লিষ্ট দলে থাকার বিধান দশম সংসদ নির্বাচনের আগে বিলোপ করায় নির্বাচনের আগ মুহুর্তে দলবদল বন্ধের আর কোনো পথ নেই। কোন দল বা জোটে মিলবে মনোনয়নের নিশ্চয়তা সম্ভাব্য সংসদ সদস্য প্রার্থীদের অনেকে এখন এই হিসাব কষতে ব্যস্ত। এরইমধ্যে অঙ্ক মিলে যাওয়ায় নিজ দল ছেড়ে অন্য শিবিরে যোগ দিয়েছেন অনেকে। সম্প্রতি বিএনপিতে যোগ দেন কৃষক লীগের সহ সভাপতি ফারুক আলম সরকার ও নীলফামারির জলঢাকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান-জামায়াত নেতা সৈয়দ আলী। জাতীয় পার্টিতে ভিড়েছেন, বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য এটিএম আলমগীর।

গণফোরামে যোগ দিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের হয়ে নির্বাচনে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়ে চমকে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ আমলের অর্থমন্ত্রী শাহ এমএস কিবরিয়ার সন্তান রেজা কিবরিয়া।রেজা কিবরিয়া বলেন, ‘ড. কামাল হোসেনের দেশকে নিয়ে যে ভবিষ্যৎ দিক নির্দেশনা দেখছি, তাতে আমি স্বস্তি পাচ্ছি। তিনি যে আমাদের দেশের হাল ধরেছেন এতে আমার কোনো চিন্তা নেই। অন্তত দেশ খারাপ দিকে যেতে পারেন না।’
ভোটের আগে ঝিনাইদহ জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি এম হারুন অর রশিদ যোগ দিয়েছেন আওয়ামী লীগে। চট্টগ্রাম সিটির সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা মঞ্জুর আলম কিনেছেন ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন ফরম।

১/১১ সরকার আমলে আলোচিত সেনা কর্মকর্তা মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কেনার কয়েক দিন পরেই যোগ দেন জাতীয় পার্টিতে। বিকল্পধারায় যোগ দিয়েছেন বিএনপির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, এরশাদ আমলের সাবেক দুই প্রতিমন্ত্রী সাবেক বিএনপি নেতা গোলাম সারোয়ার মিলন ও নাজিম উদ্দিন আল আজাদ। যোগ দিয়েছেন জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি এইচএম গোলাম রেজা ও বিএনপির সাবেক এমপি এমএম শাহীন।

গোলাম সারোয়ার মিলন বলেন, ‘বড় দুটি দলের বাইরে বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বে যে রাজনীতি, এটাকে ধারণ করে আমি এগিয়ে যেতে চাই। তিনি যখন বিএনপির মহাসচিব ছিলেন, আমি তখন ছাত্রদলের প্রেসিডেন্ট ছিলাম। আমরা একটি উদার গণতান্ত্রিক রাজনীতির ধারা বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। ’ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘আদর্শকেন্দ্রিক রাজনীতি থেকে যেন ক্রমান্বয়ে দ‚রে সরে যাচ্ছে। এখন নিজের স্বার্থেই যদি আমরা রাজনীতি করি, নির্বাচনে জয় লাভ করা, বা অন্য কোনও একটি স্বার্থে আমরা রাজনৈতিক দল পরিবর্তন করছি; সেটা কাম্য নয়।’ সূত্র : ডিবিসি নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ