প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নারীর জন্য ঘোড়ার ডিম করবেন সালমান

বিডি২৪লাইভ : সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশেই সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র তদন্তে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে।

গত ২ অক্টোবর সৌদি কনস্যুলেটে ব্যক্তিগত কাগজপত্র আনার প্রয়োজনে গেলে নিখোঁজ হন সাংবাদিক খাশোগি। যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছা-নির্বাসিত সৌদি সাংবাদিক খাশোগি ছিলেন বাদশাহ-যুবরাজসহ সৌদি রাজপরিবারের কট্টর সমালোচক।

এ ঘটনার পর থেকে তুরস্ক দাবি করে আসছিল-সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরেই জামাল খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। প্রথমদিকে অস্বীকার করে নানা রকম কথা বললেও অবশেষে কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে খাশোগি নিহত হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে সৌদি।

বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে সারাবিশ্বে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হলেও চুপ ছিলেন বাংলাদেশ থেকে নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তবে, এবার মুহম্মদ বিন সালমানকে নিয়ে মন্তব্য করলেই এই বিতর্কিত লেখিকা।

নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ সংক্রান্ত একটি পোস্ট দিয়েছেন তিনি।

তসলিমা নাসরিন তার পোস্টে লিখেন-

মুহম্মদ বিন সালমান লোকটা ভেবেছিলাম নারীর সমানাধিকারে বিশ্বাস না করলেও বেসিক কিছু অধিকারে বিশ্বাস করে। ভেবেছিলাম একটু একটু করে বুঝি নারী- বিরোধী সমাজটাকে উনি বদলাবেন। বলেছিলেন ‘ইসলাম বলেনি বোরখা পরা বাধ্যতামূলক, কেউ ইচ্ছে করলে পরবে, না করলে পরবে না।’ ওইটুকু বলেই দায়িত্ব সারলেন। মেয়েদের বোরখা না পরার অধিকারটা কিন্তু শেষ অবধি দিলেন না।

এর মধ্যে আবার এক সাংবাদিককে, সাংবাদিক তাঁর সমালোচনা করেছিলেন বলে, তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে ফাঁদ পেতে রেখে ১৫ জন সরকারি খুনী দিয়ে টুকরো টুকরো করে সাংবাদিকের শরীর কেটে অ্যাসিডের ভেতর ডুবিয়ে গলিয়ে তরল করে অবশেষে নর্দমায় ঢেলে দিলেন।

খাশোগি নামের সেই সৌদি সাংবাদিককে আক্ষরিক অর্থেই নিশ্চিহ্ন করে ফেললেন বিন সালমান। কত বড় বর্বর হলে এভাবে দূতাবাসে ঢুকিয়ে মানুষ খুন করতে পারে কেউ। যে লোক মানবাধিকারে বা মানুষের মত প্রকাশের অধিকারে বিন্দুমাত্র বিশ্বাস করেন না, সে লোক নারীর জন্য ঘোড়ার ডিম করবেন।

সৌদি মেয়েদের অনেকেই আজ বোরখা না পরার অধিকার পাচ্ছে না বলে বোরখা উলটো করে পরেছে। উলটো করে বোরখা পরে কি সত্যিই প্রতিবাদ করা যায়? কার কী এলো গেলো নিজের বোরখা নিজে উলটো পরলে! কারও চোখেও পরবে না। আর চোখে পরলেই বা কী!

বোরখা তো পরেছে, সে যেভাবেই পরুক। প্রতিবাদটা ভালো হতো, যদি বোরখাটাই না পরে রাস্তায় বেরোতো। একজন দু ‘জন নয়, হাজার হাজার মেয়ে যদি বোরখা না পরতো। গ্রেফতার করবে তো? কজনকে করবে? হাজার হাজার? করুক না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ