Skip to main content

ডুবাইয়ে সোনায় মোড়া হোটেলের সিলিং

আসনাত চৌধুরী রিভা : দুবাইয়ে মিললো সোনায় মোড়া হোটেলের সিলিংয়ের সন্ধান। এই হোটেল প্রাসাদের মূল আকর্ষণই হলো সোনার সিলিং। কেরলের ইঞ্জিনিয়ার মনোজ কুরিয়াকোসে এই হোটেল স্থপতির দায়িত্বে রয়েছেন। ৩০০ কোটির দিয়ে তৈরী এই হোটেল এমিরেটস প্যালেস বিশ্বের অন্যতম বহুমূল্যের একটি হোটেল। ২০০৫ সালে এটি স্থাপন করা হয়। হোটেলটির পূর্ব থেকে পশ্চিমে প্রায় এক কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত এই সোনার পাতা। পৃথিবীর আর কোথাও এরকম সোনার পাতায় মোড়া হোটেলের সিলিং পাবেন না, বলে দাবি করেন স্থপতি। আনন্দবাজার প্রায় ২২০০ বর্গমিটার জায়গা জুড়ে হোটেলের সিলিং সোনা এবং সোনার জলে রুপোর পাত দিয়ে মুড়ে ফেলা হচ্ছে। ২২ ক্যারাটের মত সোনা ব্যবহার করা হয়েছে এই সিলিংয়ে। সোনার পাতা দিয়ে সিলিং গুলো মোড়ানো হয়েছে, যার স্থায়িত্ব চার থকে পাঁচ বছর মাত্র। তাই এগুলিকে বারবার বদলাতে হবে। এক বর্গ মিটার সিলিংয়ে থাকে ৫০টি সোনার পাতা। একেকটি স্বর্ণপত্রের মূল্য প্রায় ৭২০০ ভারতীয় রুপি। প্রতিদিন চার থেকে ছয় বর্গমিটার সোনার পাতা বদলাচ্ছে কুরিয়াকোসের টিম। প্রতি বছর প্রায় ৯৪ লাখ রুপি সোনার পাতার নকশা বসে হোটেলের সিলিংয়ে। একটা লাল বেস কোটের উপরে এই পাতাগুলি বসানো হয়। বিশেষ আঠা ব্যবহার করা হয়। হাত দিয়েই পাতার আকার দেওয়া হয় পাতগুলিতে। কাজ শেষ হলে একটা সুরক্ষা বর্ম দেওয়া হয় সূক্ষ্ম পাতার উপরে। অতিথিরাও এই কাজ দেখে মুগ্ধ।