প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বুদ্ধিজীবীদের আচরণে ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী

আনিসুর রহমান তপন : দেশের কিছু বুদ্ধিজীবীর সাম্প্রতিক আচরণে ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যে খালেদা জিয়া ও তার দল বিএনপি ২০১৪ সালে অবরোধের নামে সারাদেশে নৈরাজ্য, সন্ত্রাস ও আতঙ্ক সৃষ্টি করলো, মানুষ পুড়িয়ে মারলো, তাদের সঙ্গেই হাত মিলিয়েছে তারা। একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মন্ত্রিসভার একাধিক সিনিয়র সদস্য জানান, কিছু বুদ্ধিজীবীর সাম্প্রতিক আচরণে বিরক্ত প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রিসভার অনির্ধারিত আলোচনায় বলেন, যারা পেট্রোল দিয়ে মানুষদের হত্যা করেছে, তাদের সঙ্গেই হাত মিলিয়েছে বুদ্ধিজীবীরা। বিএনপির এসব অপকর্ম নিয়ে তারা কথা বলতে পারে না। এই আগুন সন্ত্রাস, নৈরাজ্য নিয়ে এখন তারা কোনো কথা বলতে পারে না। এসব বিষয়ে তাদের কোনো সাড়া শব্দ নেই। বৃদ্ধিজীবীরা খালেদার এসব অপকর্ম এখন ভুলে গেছে। অথচ আমরা দেশের মানুষের জন্য কাজ করি। তাদের উন্নয়নে এত এত প্রকল্প বাস্তবায়ন করছি এসব তাদের চোখে পড়ে না। আমাদের এসব ভাল ভাল কাজগুলো তাদের ভালো লাগে না। এ নিয়ে তাদের কোনো শব্দও নেই।

মন্ত্রিসভার অপর এক সদস্য জানান, অনির্ধারিত আলোচনায় ‘হাসিনা এ ডটার’স টেল’ ডকুমেন্টরি প্রসঙ্গটিও আসে। এ প্রসঙ্গে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শুধু নয় তার পরিবার এবং তার পরবর্তী প্রজন্মও এই দেশের মানুষকে শুধু দিয়েই যাচ্ছে। বিশ্বে সম্মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে।

ডকু স্টোরিটা দেখে তার এই উপলব্ধি হয়েছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু এত বড় মাপের একজন নেতা হয়েও কত সাধারণ জীবন-যাপন করেছেন। কত বেদনা বুকে ধারণ করেও দেশের মনুষের জন্য কাজ করেছেন। তাদের সুখের জন্য আত্মনিয়োগ করেছেন। মানবিকতা না থাকলে যে ভাল ও প্রকৃত নেতা হওয়া যায়না এই ডকু স্টোরিটা তার প্রমাণ। সেই মানবিকতা বঙ্গবন্ধুর মধ্যে ছিল, শেখ হাসিনার মধ্যে আছে এবং তাদের পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যেও রয়েছে। তাইতো প্রধানমন্ত্রী কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুলকে দ্বিতীয়বার ‘ইউনেস্কো-আমির জাবের আল-আহমদ আল-সাবাহ পুরস্কার’ এর আন্তর্জাতিক জুরি বোর্ডের সভাপতি নির্বাচিত করেছে। এজন্য প্রধানমন্ত্রীকে রত্মাগর্ভা বলেও অভিনন্দন জানিয়েছেন চুমকি।

মন্ত্রিসভার অপর এক সিনিয়র সদস্য, ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজ কল্যাণ পদক’ থেকে প্রধানমন্ত্রী তার নাম প্রত্যাহারের কথা বলেন। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নাম নয়, মানুষের জন্য কাজ করে যাব এটাই আমার প্রতিজ্ঞা। আর আমি নামের জন্য কোনো কাজ করি না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ