Skip to main content

নির্বাচন হলেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় না : খালেকুজ্জামান

লিয়ন মীর : নির্বাচন হলেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান। এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য নির্বাচন হতে পারে আবার গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠানোর জন্যও নির্বাচন হতে পারে। অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, অতীতে যতোগুলো নির্বাচন হয়েছে সবগুলো নির্বাচন গণতন্ত্রকে নির্বাসিত করেছে। জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার বদলে জনগণকে জিম্মি করেছে। জনগণের কথা বলে ক্ষমতায় গিয়ে জনগণকে ভুলে গেছে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার বদলে, দলতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে। সাধারণ মানুষের অধিকার রক্ষায় কর্যকরি কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। তিনি বলেন, বড় দুই দলের জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা নিয়ে কোনো মাথা ব্যথা নেই। তারা শুধু নিজেদের ভাগবটোয়ারা নিয়ে ব্যস্ত আছে। কীভাবে জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করা যায়, জনগণের ক্ষমতায়ন কীভাবে হবে, কীভাবে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে তা তারা ভাবছে না। সর্বোপরি গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা নিয়ে দুই দলের কোনো মাথা ব্যথা নেই। তারা নিজেদের ভাগবটোয়ারা নিয়ে ব্যস্ত আছে। তিনি আরও বলেন, এই দুটি দল মুখে জনগণ এবং গণতন্ত্রের কথা বলছে কিন্তু ভিতরে ভিতরে নিজেদের হিসাব-নিকাশ নিয়ে ব্যস্ত আছে। কে কয়টা আসন পাবে, কে কতোটুকু ক্ষমতার ভাগ পাবে, এই নিয়ে ব্যক্তিগত, দলগত এবং গোষ্ঠীগত হিসাব চলছে। কিন্তু কীভাবে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন করা যায়, নির্বাচনের পরে সরকার কেমন হবে, এ বিষয়গুলো গুরুত্ব পাচ্ছে না। এটা আমাদের দেশের রাজনীতির রুগ্নতা এবং দৈন্যতা। এমন আচরণ রাজনৈতিক দলের মধ্যে গণবিরোধী অবস্থান প্রকাশ করে। যার ফলে, দিন দিন জনগণ রাজনৈতিকদলগুলোর কাছে জিম্মি হয়ে যচ্ছে। দলগুলো টাকার শক্তি এবং পেশিশক্তি অর্জনের দিকে গুরুত্ব দিচ্ছে। জনগণের ক্ষমতায় তাদের কাছে গৌন হয়ে যাচ্ছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এই অবস্থা পরিবর্তনের জন্য জনগণের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তোলা এবং প্রতিষ্ঠা করা দরকার। কিন্তু তার জন্য কার্যকরি কোনো পদক্ষেপ দেখছি না। কেননা এই দুটি দলের কাছে জনগণের অধিকার রক্ষা বা প্রতিষ্ঠা করা মুখ্য বিষয় নয়, দলীয়তন্ত্র প্রতিষ্ঠা করাই মুখ্য। জনসাধারণ তাদের কাছে গৌন।  

অন্যান্য সংবাদ