Skip to main content

সংখ্যালঘু পরিবারের মাথা গোঁজার ঠাইটুকুও কেড়ে নিল প্রভাবশালীরা

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : পটুয়াখালী জেলার মহিপুর উপজেলার আলীপুর গ্রামের একটি সংখ্যালঘু পরিবারের মাথা গোঁজার ঠাইটুকুও কেড়ে নিল স্থানীয় প্রভাবশালীরা। বিএনপি-জামায়াতের লোকজন এ কাণ্ড ঘটালেও অজ্ঞাত কারণে স্থানীয় প্রশাসন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছেনা। ভুক্তভোগী পরিবারটি স্থানীয় জেলা প্রশাসক, থানার ওসি ও হিন্দু বৌদ্ব খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদে বিচারের দাবিতে লিখিত আবেদন করেছে। লিখিত আবেদনে ভুক্তভোগী দ্বিজেন বেপারী উল্লেখ করেন, ১৯৮০ সাল থেকে আলীপুর গ্রামে ৭০ শতাংশ জমি ক্রয় করে তার দাদা-বাবা বসবাস করে আসছেন। তাদের মৃত্যুর পর তিনিই এই জমির উত্তরাধীকার সূত্রে মালিক। ২০০১ সালে বিএনপি জামায়াত ক্ষমতায় আসারর পর স্থানীয় প্রভাবশালী ইউসুফ মুসল্লি, জালাল মাস্টার, ওসমান গনি, আহসান, শহিদুল ইসলাম গং তার পৈত্রিক জমিটি জবর দখল করে নিয়ে নেয়। এর প্রতিবাদ করায় তার কাকা যতীন্দ্রনাথ বেপারীকে মারধর করে। এক পর্যায়ে তাকে অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা। দীর্ঘ ১১ মাস পরে অসুস্থ যতীন্দ্রকে উদ্ধার করা হয়। ওই সময় স্থানীয় জেলা প্রশাসন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। মাথা গোঁজার একমাত্র ঠাই হারিয়ে দ্বিজেন পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে থাকেন। বিভিন্ন দোকান পাটে, দিনমজুরি করে আবার কখনো ভ্যান চালিয়ে ধুকে ধুকে চলেছে তার সংসার। বর্তমানে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে নিরাপত্তাকর্মীর দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। জবর দখলকারিরা বিএনপি জামায়াতের রাজনীতিতে জড়িত। মাথা গোঁজার ঠাই ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন দ্বিজেন।

অন্যান্য সংবাদ