Skip to main content

নেতা-তোষণের সংস্কৃতি প্রসঙ্গে

মাসুদ রানা, লন্ডন, ইংল্যান্ড থেকে : শুনেছি, শেখ মুজিবুর রহমানের মায়ের বা বাবার মৃত্যুতে খন্দকার মোশতাক আহমেদ মাটিতে গড়াগড়ি দিয়ে কেঁদেছিলেন। আর, আশির দশকে দেখেছি, কাজী জাফর আহমেদও প্রায় একই কাজ করেছিলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মায়ের মৃত্যুতে। মার্কসবাদী বিপ্লবীরা এগুলোর প্রতি ধিক্কার জানিয়ে বলেছেন, এসব হচ্ছে ব্যক্তিকেন্দ্রিক বুর্জোয়া রাজনীতির নেতা তোষণের অপসংস্কৃতি। আমি তখন এমনটিই মনে করতাম এবং এখনো তাই মনে করি। অবশেষে দেখলাম, মার্কসবাদী বিপ্লবীরা একই কাজ করছেন একটু অন্যভাবে। নেতার সদ্যমৃত মায়ের কুরানিক বাণী মুদ্রিত চাদরের আচ্ছাদিত কবরের পাশে পুষ্পার্ঘ্য স্থাপন করে ‘রেড স্যালুট’ দিচ্ছেন। আমি বলেছি আমার ‘হাইয়ারার্কি অফ রুলস গভার্নিং হিউম্যান বিহেইভিয়ার’ তত্ত্বে, আদর্শের চেয়েও সংস্কৃতি শক্তিশালী। সুতরাং, বুর্জোয়া-পাতিবুর্জোয়া-সর্বহারা আদর্শ নির্বিশেষে এই যে মিল লক্ষ করা যায়, তার মূল আছে অভিন্ন সংস্কৃতি। আর, সমস্যাটা ঠিক এখানেই! ফেসবুক থেকে

অন্যান্য সংবাদ