প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চারশ’ কোটি টাকার পাট ও পাটবীজ প্রকল্পে জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন

মতিনুজ্জামান মিটু: প্রক্রিয়াধীন রয়েছে প্রায় চার’শ কোটি টাকার উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর পাট ও পাটবীজ উৎপাদন এবং সম্প্রসারণ প্রকল্পের জনবল নিয়োগ কার্যক্রম। আউট সোসিং এর মাধ্যমে এ প্রকল্পের মোট ৫৪৩ জন কর্মকর্তা কর্মচারির নিয়োগ হবে।

প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. লুৎফর রহমান জানান, ডেপুটেশনে (প্রেষনে) কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য মন্ত্রণালয়কে পত্র দেয়া হয়েছে। বিএডিসি (বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন) কাছ থেকে বীজ কেনার অনুমোদনের জন্য মন্ত্রণালয় (বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়) কে লেখা হয়েছে। এই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট জেলা পর্যায়ের পাট উন্নয়ন কর্মকর্তাদেরকে পাট চাষী ও পাট বীজ উৎপাদনকারীদের বাছাই এর জন্যও দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৬ দফা আন্দোলনের অন্যতম উদ্দীপক বাংলার পাটের গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্য সমুন্নত রাখতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় নেয়া হয়েছে এ প্রকল্প। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে পাট অধিদপ্তর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থে বাস্তবায়ন হচ্ছে প্রকল্পটি। পাঁচ বছরের জন্য অনুমোদিত এই প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৭৬ কোটি ৪৬ লাখ ৭৪ হাজার টাকা। ২০১৮ সালের জুলাই মাস থেকে শুরু হওয়া এ প্রকল্প ২০২৩ সালের মার্চ মাসে শেষ হবে।

তিনি আরও বলেন, সরকারের ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা, দারিদ্র বিমোচন, গ্রামীণ মহিলাদের অংশগ্রহণ, কৃষকের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় ভূমিকা রাখা ইত্যাদির নিশ্চয়তা দেয়াই হবে এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। এ প্রকল্প জাতীয় চাহিদা পুরণের জন্য পাট ও পাটবীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণ, প্যাকেটিং এবং উন্নত প্রযুক্তি সম্প্রসারণের মাধ্যমে কৃষকের উৎপাদিত বীজ বিক্রি ও বিতরণ নিশ্চিত হবে। এতে তাদের আয় বাড়বে এবং দারিদ্র্য বিমোচন হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রতি বছর ৪৬ টি জেলার ২৩০টি উপজেলার ৬ লাখ ৯০ হাজার জন কৃষক পাট উৎপাদন এবং ৭৫ হাজার জন কৃষক পাট বীজ উৎপাদনের জন্য সহায়তা পাবেন। এতে দেশের ৪৬ জেলার ২৩০ উপজেলায় পাট চাষ, ৩৬ জেলার ১৫০ উপজেলায় প্রযুক্তিনির্ভর উফশী (উচ্চ ফলনশীল) পাটবীজ উৎপাদন ও ২৮ জেলার ১০০টি উপজেলায় উন্নত প্রযুক্তিতে পাট পচন নিশ্চিত হবে। প্রকল্প মেয়াদে ১৫১৮০ হেক্টর জমিতে ৭৫০০ উচ্চফলনশীল পাট বীজ এবং ৪৬০৯৩০ হেক্টর জমিতে ৭০.৪৬০ লাখ থেকে ৮২.৬৬৫ লাখ বেল উচ্চফলনশীল তোষা পাট উৎপাদন করা হবে। সম্পাদনা শাহীন চৌধুরী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ