প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আট লেনে উন্নীত হচ্ছে গাবতলী ঢাকা-পাটুরিয়া মহাসড়ক

ডেস্ক রিপোর্ট : আট লেনে উন্নীত হচ্ছে গাবতলী ঢাকা-পাটুরিয়া মহাসড়ক। ৩২ কিলোমিটার দীর্ঘ মহাসড়কটির প্রশস্তকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। দেশের উত্তর ও পশ্চিমাঞ্চল থেকে রাজধানীতে প্রবেশে গাবতলী-পাটুরিয়া মহাসড়ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মহাসড়কটিতে ধারণ ক্ষমতার বেশি যানবাহন চলাচল করায় যানজট লেগেই থাকে। ফলে ঈদসহ নানা উৎসবের সময় জনদুর্ভোগ প্রকট হয় মহাসড়কটিতে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে সড়কটি আট লেনে উন্নীত করে এক্সপ্রেসওয়ে করার পরিকল্পনা নিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। এক্সপ্রেসওয়েটি বাস্তবায়নে গত জুলাইয়ে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে সরকারের ক্রয়-সম্পর্কিত মন্ত্রিসভা কমিটি। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ সূত্র জানায়, আট লেনের এ মহাসড়ক প্রকল্পটি নির্মাণ করা হবে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) ভিত্তিতে। মাঝের ছয় লেনে হবে এক্সপ্রেসওয়ে। দুই পাশে থাকবে একটি করে সার্ভিস লেন। টোল আদায়ের মাধ্যমে নির্মাণ ব্যয় তুলে নেবে নির্মাণকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ছয় লেনের এক্সপ্রেসওয়ে হলে এ অংশটিতে যান চলাচল নির্বিঘ্ন হবে। বিভিন্ন পয়েন্টে থাকবে এন্ট্রি পয়েন্ট। ফলে এসব পয়েন্ট দিয়ে যানবাহনগুলো সহজেই এক্সপ্রেসওয়ে থেকে বের হয়ে যেতে পারে। গাবতলী, হেমায়েতপুর, সাভার ও নবীনগরের ইন্টারচেঞ্জগুলোয় নির্মাণ করা হবে ফ্লাইওভার। বিভিন্ন পয়েন্টে পথচারী সেতু ও পারাপারের জন্য নির্মাণ করা হবে ছয়টি আন্ডারপাস। অন্যদিকে ধীরগতির যানবাহনসহ যেসব বাহনের এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হবে না সেগুলো চলাচল করবে দুই পাশের সার্ভিস লেনে। বর্তমানে চার লেন প্রশস্ত রয়েছে গাবতলী থেকে নবীনগর পর্যন্ত। যানজটের কারণে বর্তমানে গাবতলী থেকে নবীনগর পর্যন্ত যেতে ১ ঘণ্টার বেশি সময় লাগে। সড়কটির যানজট পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাইলে এ রুটে চলাচল করা বিআরটিসির এসি বাসের চালক হামিদুর রহমান বলেন, নবীনগর থেকে সাভার হয়ে গাবতলী পর্যন্ত যেতেই সময় লাগে প্রায় দেড় থেকে দুই ঘণ্টা। এ ছাড়া বাসস্ট্যান্ড ও হাট-বাজারগুলো সবচেয়ে বেশি প্রতিবন্ধক। মাঝে-মধ্যে ঢাকার যানজটপ্রবণ সড়কগুলোর চেয়েও খারাপ অবস্থা তৈরি হয় এ সড়কে। গাবতলী-পাটুরিয়া এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পটির সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, প্রকল্পটি প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। পিপিপির ভিত্তিতে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন কাজ এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে। শিগগিরই দরপত্র আহ্বান করা হবে।
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিনি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ