Skip to main content

সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে কমিশনের পূর্ণ দায়িত্ব পালন জরুরি : রুহিন হোসেন প্রিন্স

ফাহিম আহমাদ বিজয় : সিপিবি সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচনকালীন সরকার সংবিধান বিরোধী কিছু করবে না, এ ব্যাপারে নিশ্চয়তার বিধান দরকার। সেইসাথে একজন সাধারণ প্রার্থী যেসব সুযোগ-সুবিধা পাবেন, সংসদ সদস্যরা যেনো বাড়তি কোনো সুযোগ- সুবিধা না পান সে বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে নিশ্চিত করতে হবে। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশনের কিছু দায়িত্ব পালন সম্পর্কে তিনি বলেন,  আচরণ বিধি লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া, নির্বাচনের সময় সমস্ত মন্ত্রণালয়ের উপর তাদের কর্তৃত্ব স্থাপন, টাকার খেলা বন্ধ, পেশিশক্তির দৌরাত্ম্য বন্ধ, প্রসাশনিক কোনো কারসাজি হবে না, সাম্প্রদায়িক কোনো প্রচারণা হবে না এমন নিশ্চয়তা ইত্যাদি কাজগুলো নির্বাচন কমিশনের করা উচিত। এক প্রশ্নের জবাবে এই রাজনীতিবিদ বলেন, সর্বোপরি ভোট কেন্দ্রে সকল মানুষ যেনো যেতে পারে, ভোটাররা যেন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারে, ভোট কেন্দ্রে সব দলের পোলিং এজেন্ট থাকতে পারে এবং ভোট গণনা পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করতে পারে এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের শতভাগ নিশ্চয়তা দেওয়া দরকার। এ কাজগুলো করতে পারলে সুষ্ঠু একটি নির্বাচন হবে বলে তিনি মনে করেন। আলোচনা প্রসঙ্গে রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, নির্বাচনি তফসিল ঘোষণার পর মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসলেও সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়ার ক্ষেত্রে যে শঙ্কা ছিলো, সেটি এখনো দূর হয়নি। আমি আশা করি, নির্বাচন কমিশন এবং সরকার প্রতি মূহুর্তে তাদের কার্যক্রমের মাধ্যমে এই শঙ্কাটি দূর করবে। তিনি আরও বলেন,লেভেল প্লেয়িংয়ের জায়গাটা এখনো তৈরি হয়নি। কারণ, মনোনয়নের নামে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি অফিসে যে উৎসব হয়েছে, এগুলো নির্বচনের বিধি লঙ্ঘন করেছে। যে টাকার খেলা হলো, এগুলো নির্বাচনের অন্তরায়। এর মানে হচ্ছে, যাদের টাকা নেই তারা নির্বাচন করতে পারবে না। এটি হলো জাতীয় নির্বাচন। এখানে যারা নির্বাচিত হবেন, তারা আইন প্রণয়নের কাজ করবেন। কিন্তু নির্বাচনকে হালকা করে ফেলছে প্রার্থীদের এই উৎসব। সেটি কিন্তু লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড না হয়ে একটি হাস্যকর বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এগুলো নির্বাচন কমিশনের ভালো করে দেখা উচিত বলে তিনি মনে করেন।  

অন্যান্য সংবাদ