Skip to main content

কোথায় লক্ষ আর কোথায় হাজার! মোশতাক আহমেদ রুহী

ফাহিম আহমাদ বিজয়: আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য মোশতাক আহমেদ রুহী বলেন, বিএনপি অভিযোগ করছে যে, তাদের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা দেয়া হচ্ছে, জননেত্রী শেখ হাসিনা তো তাদের কাছ থেকে তালিকা নিয়েছেন। বিএনপি দু’দফায় তাদের তালিকাও দিয়েছেন। তারা বলেছে যে, তাদের লক্ষাধিক নেতা-কর্মী জেলে। কিন্তু তারা তালিকা দিয়েছে মাত্র এক হাজার জনের। কোথায় লক্ষ আর কোথায় হাজার! এগুলো তাদের বাড়াবাড়ি। আমার কাছে মনে হয় যে, তারা নির্বাচনকে বানচাল করার একটি ষড়যন্ত্র করছে। বিএনপির গায়েবি মামলার ব্যাপারে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, কিছুদিন আগে নয়াপল্টনে বিএনপি নেতা-কর্মীদের সাথে পুলিশের ব্যপক সংঘর্ষ হয়েছে। আমরা ভিডিও ফুটেজে দেখেছি, কীভাবে পুলিশের উপর তারা আক্রমণ করেছে! কীভাবে পুলিশের গাড়িগুলো পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে! এটি খুবই দুঃখজনক। তিনি আরো বলেন, ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপে বসা হয়েছে, ঐক্যফ্রন্টের দাবি অনুযায়ী নির্বাচনের সময় পেছানো হয়েছে। কিন্তু তাদের কর্মকান্ড এবং কথাবার্তায় মনে হচ্ছে, আওয়ামী লীগ ঠেকাও, নির্বাচন বানচাল করো। পুলিশের সাথে যে সংঘর্ষ হলো, এটি মনে হয়, নির্বাচন বানচাল করারই একটি পরিকল্পনা। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, দেশে এখন অংশ গ্রহণমূলক নির্বাচনের জন্য একটি উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়েছে। সবার অংশগ্রহণে একটি সুন্দর এবং শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আমি মনে করি। কিন্তু ঐক্যফ্রন্ট বা বিএনপি-জামায়াতের কেউ যদি সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অব্যাহত রাখে, তাহলে সেটি প্রতিহত করা নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব। আমরা আশা করবো, নির্বাচন কমিশন তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবে।  

অন্যান্য সংবাদ