Skip to main content

নির্বাচন নিয়েও কত সংকট, কত আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে : শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী

রফিক আহমেদ : বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মার্কসবাদী’র) কেন্দ্রীয় কার্যপরিচালনা কমিটির সদস্য কমরেড শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী বলেছেন, নির্বাচনের মাধ্যমে দলের পরিবর্তন হয়। এক দলের পরিবর্তে অন্য দল ক্ষমতায় যায়, কিন্তু মানুষের ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয় না। জাতীয় নির্বাচন নিয়েও কত সংকট, কত আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। শুক্রবার বেলা ৩টায় জাতীয় প্রেসক্লাব সামনে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মার্কসবাদী’র) ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। সমাবেশ শেষে একটি লাল পতাকা মিছিল রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। ছাত্র, শ্রমিকসহ বিভিন্ন পেশার মানুষেরা এতে অংশগ্রহণ করেন। শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী বলেন, ব্যাংক থেকে ছয় লাখ কোটি টাকা পাচার হয়ে গেল। যে দল ক্ষমতায় যাচ্ছে সেই দলই পুরো দেশের অর্থনীতিকে শেষ করে দিচ্ছে। স্মরণকালের সবচেয়ে বড় ব্যাংক লুটপাট হয়ে গেল এই সময়ে। অথচ কোন প্রতিবাদ হচ্ছে না। প্রতিবাদ করলেই তার উপর নিপীড়ন, দুঃশাসন নামিয়ে নিয়ে আসা হচ্ছে। আওয়ামী লীগের ১০ বছরের ফ্যাসিবাদী শাসন- শোষণে মানুষ চূড়ান্ত বিক্ষুব্ধ। মানুষ মুক্তির পথ খুঁজছে। একথা আওয়ামী লীগ জানে। তাই সে নির্বাচন নিয়েও সংকট সৃষ্টি করে চলেছে। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন দলের কেন্দ্রীয় কার্যপরিচালনা কমিটির সদস্য ও ঢাকা নগর শাখার ইনচার্জ কমরেড ফখরুদ্দিন কবির আতিক ও পরিচালনা করেন ঢাকা নগর শাখার সদস্য সীমা দত্ত। বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কার্যপরিচালনা কমিটির সদস্য কমরেড শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী ও কমরেড আলমগীর হোসেন দুলাল। সমাবেশের আগে গণসংগীত পরিবেশন করে চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। কমরেড আলমগীর হোসেন দুলাল বলেন, বর্তমান পুঁজিবাদী সমাজব্যবস্থায় মানুষ তাদের অধিকার পাচ্ছে না। পুঁজিপতিরা তাদের মুনাফার স্বার্থে বুর্জোয়াদেরকে দেশের শাসনক্ষমতায় আনতে চায়। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অগণতান্ত্রিকভাবে সম্পূর্ণ গায়ের জোরে ক্ষমতা দখল করে আওয়ামী লীগ সরকার যে ফ্যাসিবাদী শাসন দেশে কায়েম করেছে, তা থেকে জনগণ মুক্তি চায়। বুর্জোয়া গণতন্ত্রের যতটুকু প্রকাশ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে পেত, তাও এখন তারা বন্ধ করতে চাচ্ছে। ফলে নিরপেক্ষ নির্দলীয় তদারকি সরকারের অধীনে একটা সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক পরিবেশে নির্বাচন দিতে তারা ভয় পাচ্ছে। সম্পাদনা- মাহবুব আলম

অন্যান্য সংবাদ