Skip to main content

তবুও খালেদকে নিয়ে অধিনায়কের অনেক আশা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটে হারের পর জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ঢাকা টেস্টে দল জিতেছে। সমতায় শেষ হওয়া এই সিরিজের শেষ টেস্টে অভিষেক হয়েছে পেসার খালেদ আহমেদের। তবে উইকেটশূন্য খালেদ আহমেদ পাশে পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহকে। অধিনায়ক মনে করেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটে ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল ডানহাতি এই পেসারের।২০টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে অভিষেক হয় খালেদের। সিলেটের ২৬ বছর বয়সী এই পেসারের ভালো বোলিংয়ের ছাপ পড়েনি স্কোর বোর্ডে। মাহমুদউল্লাহ মনে করেন- বোলিং ফিগার (১৮-৭-৪৮-০ ও ১২-৪-৪৫-০) দেখে খালেদকে মূল্যায়ন করা ঠিক হবে না। ‘খালেদ তার প্রথম টেস্ট অনুয়ায়ী যথেষ্ট ভালো বোলিং করেছে। প্রথম ওভারটা যখন সে করেছিল, আমার মনে হয় টানা তিনটা বাউন্সার করেছিল। তখন তার সঙ্গে আমি কথা বলেছি, শুরুতে সে একটু নার্ভাস ছিল। যদি দুয়েকটা উইকেট পেয়ে যেত তখন হয়তো আরেকটু অ্যাফোর্ড দিয়ে বোলিং পারত। উইকেট পেলে ব্যাপারটা ঘটে। আরেকটু বেশি দিয়ে বোলিং করা যায়। আমার মনে হয়, তার প্রতিভা আছে। বাংলাদেশের ক্রিকেটে তার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল।’ ম্যাচে ৩০ ওভার বোলিং করে উইকেট মেলেনি খালেদের। সতীর্থরা সুযোগ হাতছাড়া না করলে তার নামের পাশে থাকতে পারত তিন উইকেট। প্রথম ইনিংসে দুটি ও দ্বিতীয় ইনিংসে একটি ক্যাচ ছুটেছে তার বোলিংয়ে। অধিনায়ক মনে করেন, এভাবে বোলিং করে গেলে সাফল্য ধরা দেবেই খালেদের হাতে। ‘ওর কিছুটা দুর্ভাগ্যও ছিল। তার বোলিংয়ে কিছু সহজ ম্যাচ মিস করেছি আমরা। নয়তো তার বোলিং ফিগারটা আরও সুন্দর দেখাত। মাঝে মাঝে ভাগ্যও পাশে থাকা লাগে।’