প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচন পেছানোর দাবি ও বিএনপির হামলা এক সূত্রে গাথা: হাছান মাহমুদ

মো: ইউসুফ আলী বাচ্চু: জতীয় নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবি ও মনোনয়ন পত্র কেনার সময় পুলিশ ও জনসাধারণের উপর হামলা একই সূত্রে গাথা বলে মন্তব্য করে আ.লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার ( ১৬ নভেম্বর ) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে বিএনপি আগুন সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও নৈরাজ্যের প্রতিবাদে
আয়োজিত সমাবেশ ও মানববন্ধনে তিনি এ কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, গত পরশুদিন বিএনপি কার্যলয়ের সামনে উসকানিমূলকভাবে দেশের নৈরাজ্যে সৃষ্টির করা লক্ষ্যে পুলিশসহ সাধারণ মানুষের উপর হামলা চালিয়েছে।পুলিশের গাড়িসহ সাধারণ মানুষের কয়েকটি গাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর আবার পিছানোর দাবি আর গত পরশুদিনের অতর্কিত হামলা একই সূত্রে গাথা।

তিনি বলেন, মির্জা ফখরুলকে মিথ্যাবাদি বলে আখ্যায়িত করেছে আমি এ বিষয়ে এখন সহমত পোষন করছি।

বিএনপি নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না প্রসঙ্গে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে একটা প্রবাদ রয়েছে কেই যদি নতুন মুসলিম হয়, বেশি নামাজ পড়ে গরুর মাংশ বেশি খায়। উনাকে নৌকা থেকে নামিয়ে দিয়েছি, এখন বিএনপিতে যোগদান করে খালেদা জিয়ার জন্য জীবন দেয়। মির্জা ফখরুল আর মান্নার বক্তব্যোর মধ্যে মিল রয়েছে ।

তিনি আরও বলেন, গত পরশুদিন যে ঘটনা ঘটিয়েছে বা মদদ দিয়েছে তাদের সকলকেই আইনের আওয়তায় এনে বিচার করা হবে। কোন প্রকার ষড়যন্ত্রে রেহাই পাবে না।

উক্ত মানবন্ধনে বক্তরা বলেন, আমরা সন্ত্রাস চাই না, মানুষকে পুড়িয়ে মারতে চাই না, সোনার বাংলা গড়তে চায়।আওয়ামী লীগ উন্নয়ন চায়, সন্ত্রাস চায় না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এই উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগকে ভোট দিন।

মানববন্ধনের বক্তরা বিরোধীদলকে সাবধান করে বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করবেন না, দেশের সম্পদ নষ্ট করবেন না। এই বিরোধীদল বর্তমানের উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে নষ্ট করতে চায়। বিএনপি দেশকে পিছিয়েছি নিয়ে যেতে চায়। তাই এদের অন্যায় ষড়যন্ত্রে বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। বর্তমান বিরোধী দলকে দেশের বাহিরে সন্ত্রাসীদল বলে আখ্যায়িত করেছে।

এ মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হেদায়েতুল ইসলাম স্বপণ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আ.লীগের প্রচার সম্পাদক আক্তার হোসেন, শাহাবাগ থানার সভাপতি জি.এম আতিক, সংগঠনের সভাপতি জিন্নাত আলী খান জিন্নাহ ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা মো.শাহাদত হোসেন টয়েল প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ