প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নৌকা বিজয়ী না হলে আওয়ামী লীগ থেকে চলে যাব : প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট : একাদশ জাতীয় সংসদে সব মনোনয়ন প্রত্যাশী দলের মনোনীত প্রার্থীর জন্য কাজ করে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে না পারলে দল ও পদ ছেড়ে চলে যাবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ক্ষমতায় যেতে হলে যাকেই মনোনয়ন দেবো, তাকেই নির্বাচনে জেতাতে হবে যেন আমরা মেজরিটি সিট পেয়ে সরকার গঠন করতে পারি।

কারণ, আমরা চাই না যারা মানুষের স্বাধীনতার বিশ্বাস করে না, যারা যুদ্ধাপরাধে জড়িত, যারা ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় জড়িত, যারা দুর্নীতি-সন্ত্রাস-মাদকের সঙ্গে জড়িত তারা ভোটে জিতুক। সেটা হলে আমাদের এতদিনের অক্লান্ত পরিশ্রমের সব অর্জন শেষ হয়ে যাবে। আমি আশা করি, আমাদের নেতাকর্মী অন্তত এইটুকু করবেন। এটুকু আপনারা আমার জন্য করুন। না হলে আমাকে আর পাবেন না। আমি আওয়ামী লীগের পদ ছেড়ে চলে যাব।

বুধবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসবভন গণভবনে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ অনুষ্ঠানের সূচনা বক্তব্যে শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত একাধিক সূত্র সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, সূচনা বক্তব্যে শেখ হাসিনা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উদ্দেশে বলেন, আমি আপনাদের কাছে কিছুই চাইনি, যতটুকু পেরেছি দিয়েছি। আমার জীবন উৎসর্গ করেছি এই দেশের জন্য। আমরা জীবনটাই উৎসর্গ করেছি এই আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করার জন্য। আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মী আমার কাছে এসে বিমুখ হয়ে যাননি। কিন্তু আজ আমার চাওয়ার আছে আপনাদের কাছে।

তিনি বলেন, আমি একটি অশনি সংকেত দেখতে পাচ্ছি, একটি চক্রান্ত দেখতে পাচ্ছি। এই দেশকে নিয়ে আবার খেলার চেষ্টা করা হচ্ছে। ওই যে পরাজিত শক্তি, যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ক্ষমতায় এসে এ দেশের বিজয়কে ছিনিয়ে নিয়েছিল, যারা বারবার চেষ্টা করেছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে, তারা আবার সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, আমাদের আজকের উন্নয়নশীল দেশের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে আপনাদের চিন্তা করতে হবে। আমরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছি, আমরা জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার করেছি। তাদের আত্মীয় স্বজন ও ছেলেমেয়েরা আছে। তারা কারও মুখ চেয়ে বসে থাকবে না। খালেদা জিয়া-তারেক জিয়া আছে। খালেদা জিয়া দুর্নীতি করে আজ জেলে। এটাও মনে রাখতে হবে, তারা যদি ক্ষমতায় আসে কী ভয়াবহ পরিস্থিতি হবে। কিভাবে তারা মানুষের জীবন নেবে।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, যারা জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে মারতে পারে, এরা তো ক্রিমিনাল। এদের তো অন্য কিছু নেই। এরা চেনে অর্থ, এরা চেনে সম্পদ। এরা মানুষের জীবন নিয়ে খেলা করে। এরা ক্ষমতায় আসা মানে দেশটাকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাওয়া। তাদের মনে যে পাকিপ্রেম, সেটাই তো তারা আর ভুলতে পারেনি। সেইসঙ্গে জুটেছে আরও কিছু পাকিপ্রেমী। এই চিন্তা যাদের মাথায়, তাদের হাতে দেশটা তুলে দেবেন আপনারা?— উপস্থিত দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের কাছে জানতে চান হাসিনা। এসময় উপস্থিত সবাই ‘না, না, না’ বলে ওঠেন।

দলের সবাইকে একজোট হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, যারা মনোনয়ন তুলেছেন, আমি বলব সবাই উপযুক্ত। কিন্তু আমাকে তো মনোনয়ন দিতে হবে একজনকে। আবার কিছু আসন জোটকেও দিতে হবে। কারণ জোট একটা থাকতেই হবে। এখন আপনারা কি আবার ক্ষমতায় যেতে চান? ক্ষমতায় যদি যেতে হয়, তাহলে কী করতে হবে? যাকেই মনোনয়ন দেবো, তাকেই নির্বাচনে জেতাতে হবে যেন আমরা মেজরিটি সিট পেয়ে সরকার গঠন করতে পারি।
আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, আমরা এই নির্বাচনে জিততে না পারলে আমাদের সব অর্জন শেষ হয়ে যাবে। আশা করি, আমাদের নেতাকর্মী অন্তত এইটুকু করবেন আমার জন্য। না হলে আমাকে আর পাবেন না। নইলে আমি আওয়ামী লীগের পদ ছেড়ে চলে যাব।এসময় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ‘না না না না, আমরা কথা দিচ্ছি’ বলে অঙ্গীকার করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই বাংলাদেশ একটি উন্নত, সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ হয়ে গড়ে উঠুক। যে স্বপ্ন জাতির পিতার পিতা দেখেছিলেন। আমি বড় সন্তান হিসাবে সবসময় গর্ব করেছি আর বাবার সেই স্বপ্নই পূরণ করার চেষ্টা করেছি। এই স্বপ্ন পূরণ করে যেতে পারব যদি আপনারা ঐক্যবদ্ধ থেকে যে কথাটি দিয়েছেন সেই কথাটি রাখেন। প্রধানমন্ত্রীর সূচনা বক্তব্যের পর মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উদ্দেশে নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সূত্র : সারাবাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ