Skip to main content

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পিএম ফেস কে : কাদের

আনিসুর রহমান তপন : জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বা বিএনপি নির্বাচনে জয়লাভ করলে তাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন প্রশ্ন রেখে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, তাদের পিএম ফেস কে? তিনি আরো বলেন, প্রত্যেক দেশে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী দলের বা জোটের পিএম ফেস থাকে। আমি জানতে চাই, তাদের পিএম ফেস কে? আমাদের পিএম ফেস আছেন উল্লেখ করে কাদের বলেন, তারা একটা নির্বাচন করবে, সেই নির্বাচনে জয়লাভ করলে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন? ড. কামাল হোসেন না তারেক রহমান? আমার মত এটা দেশবাসীরও জিজ্ঞাসা। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আলোচনায় এ কথা বলেন তিনি। এসময় বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, তারা তো নির্বাচন চায় না। তারা চায় নির্বাচনকে বানচাল করতে। তা না হলে এমন ঘটনা তারা ঘটাতো না। তিনি বলেন, বিএনপি পরিকল্পিতভাবে পুলিশের উপর হামলা ও সহিংসতা চালিয়েছে। তারা পুলিশের গাড়ির ওপর উঠে লাফিয়েছে আর শেখ হাসিনার পতন চেয়েছে। এটা কেন? আর বিএনপি তার কর্মীদের সহিংস ঘটনাকে ছাত্রলীগের হামলা বলে দলটির মহাসচিব মির্জ ফখরুল ইসলাম আলমগীর মিথ্যাচার করেছেন। তিনি এ ঘটনায় যেভাবে মিথ্যাচার করেছেন তা আমি ভাবতেও পারিনি। এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছে সাংবাদিকদের ভিডিও ফুটেজেই তার প্রমাণ পাওয়া গেছে। পুলিশের গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় নির্বাচন কমিশন (ইসি) কি ব্যবস্থা নেয় তার দিকেও তাকিয়ে আছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, নয়াপল্টনের ঘটনায় নির্বাচন কমিশন কি করে সেদিকে তাকিয়ে আছি। এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেবেন কিনা জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরাতো নির্দেশ দিতে পারি না। তবে ইসি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বলতে পারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে। তাই এখন অপেক্ষায় আছি ইসি কি ব্যবস্থা নিতে পারে। এসময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচনকালীন সরকার নিয়েও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারের আকার ছোট হবে কিনা? তা দু/এক দিনের মধ্যে জানা যাবে। গত নির্বাচনেও নির্বাচনকালীন বলে কোনো সরকার গঠন করা হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারের আকার ছোট করা হয়েছিল মাত্র। তবে সরকারে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী থাকবে না জানিয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগপত্র গ্রহণ করলে রাষ্ট্রপতির কাছে যাবে, তারপর ফাইনালি তাদের পদত্যাগ হয়ে যাবে। তবে বর্তমান মন্ত্রিসভা থেকে মন্ত্রী আর কমার সম্ভাবনা নেই। তাছাড়া নির্বাচনকালীন সরকার বলে সংবিধানে কোনো কিছু নেই। পৃথিবীর সব দেশে যখন নির্বাচন হয় তখন বর্তমান সরকার দায়িত্বে থাকে। আর নির্বাচন কমিশন বাকি দায়িত্ব পালন করে। এছাড়াও ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচন পেছানোর দাবি একেবারেই অযৌক্তিক জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা নির্বাচন বানচাল করতেই এমন দাবি করেছেন। আমাদের মতো বড় দল না চাইলে কীভাবে নির্বাচন পেছাবে? তাছাড়া নির্বাচনে আরও দল আছে তারা তো নির্বাচন পেছানোর দাবি জানায়নি।

অন্যান্য সংবাদ