প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুষ্ঠু নির্বাচন হবে, নির্বাচন পাহারা দেবে জনগণ : আব্দুল মতিন খসরু

হ্যাপি আক্তার : আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল মতিন খসরু বলেছেন, ভোটারের ছবি ও আঙ্গুলের ছাপ থাকার কারণে ইচ্ছে করলেই একজনের ভোট অন্য জন দিতে পারবে না। সুতরাং অপেক্ষা করুন, উসকানিমূলক কথা বলা যেন আমরা না বলি। সুষ্ঠু নির্বাচন হবে, এই নির্বাচনে জনগণই পাহারা দেবে। কারো পক্ষে কোনোভাবেই ভোট কেন্দ্র দখল করা সম্ভব নয়। বিভিন্ন মিডিয়া রয়েছে দেশে। ৩৭টি টেলিভিশল চ্যানেল, বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা আছে, দেশি-বিদেশী পর্যবেক্ষকরা আছেন, কিভাবে সেখানে কারচুপি হবে। আমাদের জাতীয় নেতৃত্বের দায়িত্ব হবে যার যার কর্মীবাহিনীকে নিয়ন্ত্রণে রাখা। এখন আন্দোলনের সময় নাই। আন্দোলন একটাই নির্বাচন। যমুনা টেলিভিশনের ‘রাজনীতি’ টকশোতে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় মতিন খসরু নয়াপল্টনে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংর্ঘষের ঘটনায় কথা উল্লেখ করে বলেন, পুলিশ মিছিলটি যাতে ঠিকভাবে হয় সেদিকে খেয়াল রাখছিলেন। কিন্তু পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলে তারা তো আত্মরক্ষা করবে। এটা বড় বিষয় না। আমাদের সকলের দায়িত্ব সংযত আচরণ করা, আমরা কেউ ফেরেস্তা নই। সকলকেই কিছু কিছু ছাড়া দিতে হবে। যেন ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনটি সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে হয়।  সমগ্র জাতি তাকিয়ে আছে ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিকে। এ জন্য সরকারী দল-বিরোধী দল সবার সহনশীল মনোভাব থাকা উচিত। ছোটখাটো বিষয়ে নজর না দেয়াই ভালো।

তিনি আরো বলেন, এখন সমগ্র জাতি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হয়ে আছে। এর বাইরে অন্য কোনো আন্দোলনে তারা সাড়া দিবে না। যে আন্দোলনে জনগণের স্বার্থ থাকে না তারা সেই আন্দোলনে সাড়া দেয় না। গত দশ বছরে আপনারা সেটা দেখেছেন। কাউকে আঘাত করে কথা বলতে চাচ্ছি না। সবাই মিলে নির্বাচনটা করি। এতে সবার লাভ হবে। দেশের লাভ হবে। গণতন্ত্রের লাভ হবে।
তিনি বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিতরা দেশ পরিচালনা করুক এটা আমাদের সংবিধানের চেতনা। আমাদের প্রধানমন্ত্রী সবদলের অংশগ্রহণে নির্বাচনের কথা বলেছেন। আমরা সেজন্য সচেষ্ট আছি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ