প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশের রাজনীতি এক নতুন অধ্যায়ে প্রবেশ

ড. বদরুল হাসান কচি : আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে রাজনীতির আকাশে কাল মেঘ দেখা গিয়েছিল। একদিকে সংবিধান মতে, নির্বাচনের অঙ্গীকার ছিলো ক্ষমতাসীনদল আওয়ামী লীগ ও সরকারের; অন্যদিকে সংবিধানের বাহিরে ভিন্ন পথ বাতলিয়ে প্রধানতম বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএনপিসহ কয়েকটি দল নিয়ে গঠিত নতুন রাজনৈতিক জোট- ঐক্যফ্রন্ট কিছু দাবি যুক্ত করে দিলেন এবং তা মানা না হলে নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণাসহ আন্দোলনের হুমকি দিলেন। এরপর দুইপক্ষ অনড় অবস্থানে থেকে মুখোমুখি সংলাপও হয়েছে দুই দফা। বৈঠক-পরবর্তী সাংবাদিক ব্রিফিং শুনে সংলাপের ফলাফল ইতিবাচক বলে মনে হয়নি। এরই মধ্যে নির্বাচন কমিশন জাতির উদ্দেশ্যে ভোটের দিন তারিখ ঘোষণা দিয়ে দিলেন। বাংলাদেশে ভোট উপলক্ষ করে নাগরিকদের কাছে এটি উৎসবে পরিণত হয়। কারণ নির্বাচন ঘিরে মানুষের চাওয়া-পাওয়া, প্রত্যাশা-প্রাপ্তির নানান হিসেব-নিকেশ থাকে। অথচ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর সকল নাগরিকের মধ্যে আনন্দের পরিবর্তে ভয়-চিন্তা ভর করে। কারণ ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের পূর্ববর্তী সময়ে বিএনপি অবরোধ কর্মসূচি নামে দেশব্যাপী যে আগুন সন্ত্রাস চালিয়েছিলো জনগণের মনে সে ভয় এখনো তাড়া করছে। অবশেষে বিএনপিসহ ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে আসছে- এমন ঘোষণায় জনমনে সে ভয়, শঙ্কা সাময়িক দূর হয়েছে বলে ধরে নেয়া যেতে পারে। নির্বাচনের অংশ নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিএনপি; কার্যালয় ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে বেশ উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। সারাদেশে কর্মীদের আনন্দ জোয়াওে বোঝা যাচ্ছে তারা নির্বাচনের জন্য উন্মুখ হয়ে অপেক্ষায় ছিলো।

সংবিধানের আলোকে একটি স্বাধীন নির্বাচন কমিশনের অধীনে সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন সম্পন্ন হলে বাংলাদেশ নিঃসন্দেহে বিশ্বে আরেক উচ্চতায় পৌঁছবে এবং দ্বিমতের সুযোগ নেই, এ নির্বাচনের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতি এক নতুন অধ্যায়ে প্রবেশ করবে। তাই অনড় অবস্থান থেকে সরে এসে বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই।

লেখক- আইনজীবী ও সম্পাদক, ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডট কম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত