প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইসির কথায় সন্তুষ্ট ড.কামাল, ফখরুল না

ফারজানা স্মৃতি :  জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন (ইসি) আমাদের নির্বাচনে সাহায্য সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, নির্বাচন অবাধ-সুষ্ঠু হবে। তাঁরা ধৈর্য ধরে আমাদের কথা শুনেছেন। আশা করি তাঁরা সহযোগিতা দেবেন।’

ইসির সঙ্গে বৈঠক শেষে আজ বুধবার সন্ধ্যায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন।

ড. কামাল বলেন, এটি সরকারি বাহিনীর উৎসাহী কাজ। নির্বাচন পেছানো হবে কি না, সে বিষয়ে কামাল হোসেন বলেন, ইসি বলেছে তারা বিষয়টি বিবেচনা করবে।

ব্রিফিংয়ে ইসির বৈঠক নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেন ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘বিরোধী দলের নির্বাচনে টিকে থাকাটা ইসি ও সরকারের আচরণের ওপর নির্ভর করছে। আমরা ইভিএম ব্যবহার করতে না করেছি। ইসি বলেছে, তারা সিটি করপোরেশন এলাকায় সীমিত আকারে এসব ব্যবহার করবে। সেনা মোতায়েন প্রসঙ্গে ইসি বলেছে, তারা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে। তবে প্রতি কেন্দ্রেই সেনা মোতায়েন করা যায় কি না, তা ইসি বিবেচনা করবে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গণভবনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ চলছে। এটা সরকারি ভবন। এটা প্রধানমন্ত্রী পারেন কি না, সে বিষয়ে আমরা ইসির দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।’ ইসি বলেছে, ‘তারা এটি খতিয়ে দেখবে।’

ফখরুল বলেন, বৈঠকে জনপ্রশাসনে রদবদল, বদলি ও গায়েবি মামলা প্রভৃতি বিষয়ে ইসির দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, কেন্দ্র থেকে নির্বাচনের খবরাখবর সম্প্রচার নিয়ে ইসির সঙ্গে কথা হয়েছে। ইসি বলেছে, সাংবাদিকেরা নির্বাচন কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে। কিন্তু কেন্দ্রের ভেতরে থেকে সরাসরি সম্প্রচার করতে পারবে না।

ফখরুল বলেন, ‘আমরা ইসিকে বলেছি, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। তাঁকে ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। ইসি বলেছে, তারা বিষয়টি দেখবে।’

ব্রিফিংয়ে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ‘ইসি আমাদের সব কথা শুনেছে। প্রতিবারই শোনে। তবে তারা কতটা পালন করবে, তা জনগণ দেখবে।’

সূত্র : প্রথম আলো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ