প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জীবননগরে এনজিও ঋণের কিস্তির টাকা দিতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা

জামাল হোসেন খোকন : চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার কাশিপুর গ্রামের এক গৃহবধূ বিভিন্ন এনজিও ঋণে জর্জরিত হয়ে ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার রাতে বিষপাণে আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

নিহত গৃহবধূ-জীবননগর উপজেলার কেডিকে ইউনিয়নের কাশিপুর বাজার পাড়ার আব্দুল হালিম বুধোর স্ত্রী শরিফা খাতুন (৫২)।

এলাকাবাসী সূত্র জানান,কাশিপুর বাজারপাড়ার বুধো পারিবারিকভাবে অনেকটাই অস্বচ্ছল অভাব অনাটনের মধ্যে স্ত্রী, এক ছেলে ও এক কন্যা সন্তান নিয়ে জীবনযাপন করে আসছিলো। পারিবারিক ভাবে হতদরিদ্র হওয়ায় ভাগ্যের চাঁকা ঘুরাতে গৃহবধূ শরিফা খাতুন এলাকার বিভিন্ন এনজিও থেকে মোটা অংকের ঋণ গ্রহণ করেন। এক পর্যায়ে ঋণ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় পরিবারে অশান্তি নেমে আসে।

নিহত গৃহবধূর বড় ভাই আব্দুস সবুর বলেন, আমার বোন শরিফা খাতুন ইতোপূর্বেও বিভিন্ন এনজিও থেকে মোটা অংকের ঋণ নিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত সেই ঋণ আমরা কয়েক ভাই মিলে পরিশোধ করে দিই এবং এলাকায় কাজ করা বিভিন্ন এনজিও সংস্থাকে অনুরোধ করি আমার বোনকে যেন আর তারা ঋণ না দেয়।

তারপরও আমার উক্ত বোন বিভিন্ন এনজিও থেকে এক থেকে দেড় লাখ টাকা ঋণ নিয়েছে শুনেছি। সেই ঋণ ঠিকমত পরিশোধ করতে না পেরে তাদের পরিবারে অশান্তি শুরু হয়। বোনের বাড়ীতে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বেশ কিছু এনজিও কর্মী ঋণ আদায় করতে আসে এবং টাকা দেয়ার জন্য তারা চাপ দিতে থাকে।

পরবর্তীতে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে আমার বোন শরিফা খাতুন বিষপাণে আত্মহত্যা করে।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ গনি মিয়া বলেন, এনজিও ঋণের দায়ে জর্জরিত হয়ে বিষপানে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ চুয়াডাঙ্গা মর্গে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ