Skip to main content

উইঘর মুসলিমদের নির্যাতনকে পশ্চিমাদের উপাখ্যান বলল চীন

সাইদুর রহমান: চীনের উইঘর মুসলিমদের বন্দি করার বিষয়ে আন্তর্জাতিক সমাজকে আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বিশ^াস করার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। উগ্রবাদ দমনে চীনের আত্মরক্ষা নীতি অবলম্বন করছে বলে জানান তিনি।জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেকো মাসের সাথে এক সংবাদ সম্মেলনে ওয়াং ই জানান, উত্তম হলো গুজবকে বিশ^াস না করা। কেননা জিনজিয়াং সরকারই ভালো জানে সেখানকার প্রকৃত অবস্থা , কোনো সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নয়। ওয়াং ই জানান, আমরা আত্মরক্ষা ও দমন উভয়টিকে সমর্থন করি , কিন্তু আত্মরক্ষাকেই আমরা অগ্রাধিকার দেই যদি শান্তিপূর্ণ উপায়ে হয়। যাতে সন্ত্রাসবাদ প্রসারিত ও শেকড় গেড়ে না বসে। জিনজিয়াং এ বন্দিশালার ব্যাপারে চীন বলেছে, এগুলো উগ্রপন্থি সদস্য ও তাদের পরিবারের পুর্নবাসন ও সন্ত্রাসবাদ বন্ধের জন্যেই করা হয়েছে। এ বন্দিশালা নির্মাণের পর আন্তর্জাতিকভাবে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিশ্বব্যাপী মানবাধিকার সংস্থাগুলো। বন্দিশালা থেকে যারা বের হয়েছেন তারা জানান, শুধু দাড়ি ও হিজাব পরার কারণে তাদের আটকে রাখা হয়েছে। জিনজিয়াং প্রদেশে কড়া নিরাপত্তা জারি করেছে চীন সরকার। ডিএনএ নমুনার জন্য প্রতিটি জায়গায় পর্যবেক্ষণ ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। এমনকি গাড়িতেও জিপিএস ডিভাইস বসানো হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার জার্মানির পার্লামেন্ট জিনজিয়াং এ একটি আলোচনা সভার আয়োজন করে। যদিও বার্লিনে চীনা দূতাবাস আভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে আনুষ্ঠানিকভাবে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। সূত্র: আরটি

অন্যান্য সংবাদ