প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খেলাপি ঋণে ১ লাখ মামলা, আটকে আছে ২ লাখ কোটি টাকা

আদম মালেক : বছরের পর বছর ধরে আদালতে আটকে আছে ১ লাখেরও বেশী খেলাপি ঋণের মামলা। এতে আটকে আছে দুই লাখ কোটি টাকার বেশি, যা বাংলাদেশের চলতি অর্থবছরের বাজেটের ৪৩ শতাংশ। বেসরকারি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন

এবিবির চেয়ারম্যান ও ঢাকা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, একেকটা মামলা নিষ্পত্তিতে সাধারণত ৮-১০ বছর লেগে যায়। এত দীর্ঘ সময় আটকে থাকা টাকার ধাক্কা সার্বিক ব্যাংকিং খাতে লাগে। নতুন করে ঋণ দিতে না পারলেও ব্যাংককে আমানতকারীদের সুদ ঠিকই টানতে হয়।বাংলাদেশ ব্যাংকের সবশেষ হিসাব অনুযায়ী, ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ৮৯ হাজার ৩৪০ কোটি টাকা। এর বাইরে আরও ৪৫ হাজার কোটি টাকা অবলোপন (রাইট অফ) করা; যা পাওয়ার আশা নেই বললেই চলে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ এসব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে আলাদা দুটি বেঞ্চ গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন। বলেছেন, এ ব্যাপারে সরকারের বিশেষ উদ্যোগ নেয়া উচিত।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে দেখা যায়, চলতি বছরের জুন শেষে বিভিন্ন আদালতে ব্যাংকগুলোর মামলার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৭০৫। আর এসব মামলায় আটকে আছে দুই লাখ ১০৭ কোটি টাকা। এসব মামলার মধ্যে বেসরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের করা মামলার সংখ্যা ৬৫ হাজার ৬৭৬টি। আর এসব মামলায় আটকে আছে প্রায় ৮৮ হাজার ৫৫৯ কোটি টাকা। আর ১৭ হাজার কোটি টাকা আদায়ে মামলা করেছে আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সরকারি ব্যাংকের করা ৩২ হাজার ৪৭১টি মামলার বিপরীতে ৭১ হাজার ৪২ কোটি টাকা আটকে আছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ