প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ওয়ার্কার ডেটাবেসের জন্য আন্তর্জাতিক এসোসিও অ্যাওয়ার্ড পেল বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বায়োমেট্রিক আইডেন্টিটি অ্যান্ড ওয়ার্কার ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (ওয়ার্কার ডেটাবেস)’ ব্যবহারের জন্য এসোসিও কর্তৃক এ বছরের শ্রেষ্ঠ ব্যবহারকারী প্রতিষ্ঠানের পুরস্কার পেয়েছে বিজিএমইএ। এসোসিওর বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত বিজিএমইএর পক্ষে এই পুরস্কার গ্রহণ করেন বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, বিজিএমইএ সহসভাপতি (অর্থ) জনাব মোহাম্মদ নাসির এবং সফটওয়্যার প্রস্তুত ও রক্ষণাবেক্ষণকারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সিসটেক ডিজিটাল লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী জনাব এম রাশিদুল হাসান।

সম্প্রতি জাপানের টোকিওতে অনুষ্ঠিত ‘এসোসিও ডিজিটাল মাস্টার্স সামিট ২০১৮’-এ আন্তর্জাতিক এই সম্মাননা বিজিএমইএ-র হাতে তুলে দেন এসোসিও-এর চেয়ারম্যান জনাব ডেভিড ওংসহ অন্যরা।

এশিয়া এবং ওশেনিয়া অঞ্চলের ২৪টি ইকোনোমি দেশ নিয়ে এশিয়ান-ওশেনিয়া কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি অর্গানাইজেশন (এসোসিও) গঠিত। প্রতিবছর ২৪টি দেশ হতে মনোনীত শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান ও প্রজেক্টকে চারটি ক্যাটেগরিতে এসোসিও এই বিরল সম্মামনা দিয়ে থাকে।

তথ্যসূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালে বিজিএমইএর উদ্যোগে এই ‘বায়োমেট্রিক আইডেন্টিটি অ্যান্ড ওয়ার্কার ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (ওয়ার্কার ডেটাবেসে)’ সফটওয়্যারটি সারা দেশে বাস্তবায়ন করা হয়। বর্তমানে সারা দেশে বিজিএমইএর ২ হাজার ৩০০টির অধিক ফ্যাক্টরি ৩৫ লক্ষাধিক শ্রমিকের জন্য এই সফটওয়্যার প্রতিদিন ব্যবহার করে থাকেন।

উল্লেখ্য, এই সফটওয়্যার সিস্টেমটির মাধ্যমে ফ্যাক্টরির সব শ্রমিকের বায়োমেট্রিক ফিঙ্গারপ্রিন্ট, ছবি, চাকরি ও অনন্য সকল তথ্য স্থানীয় ও ক্লাউড সার্ভার ডাটাবেসে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এসব তথ্য পরবর্তীতে অন্যান্য ফ্যাক্টরির শ্রমিকের সঙ্গে সব ধরনের শনাক্ত ও নিশ্চিতকরণ করা যায়। এছাড়াও সার্ভিস বুক, ইন্সুরেন্স, ইউডি, ক্যাশ ইন্সেন্টিভ ও অন্যান্য কাজে জন্য এই তথ্য ভাণ্ডার তৈরি পোশাক শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এক-ক্লিকেই সব-ধরনের তথ্য সরবরাহ করে থাকে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ