Skip to main content

৫ বছরে ২৭৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা আদায় দুদকের

তরিকুল ইসলাম সুমন : ২০১৩ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত পাঁচ বছরে বিভিন্ন মামলায় বাজেয়াপ্ত ও জরিমানা বাবদ অভিযুক্ত দুর্নীতিবাজদের কাছ থেকে ২৭৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা আদায় করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। মঙ্গলবার অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত ইউনাইটেড ন্যাশনস কনভেনশন অ্যাগেইনেস্ট করাপশন (আনকাক) এর দ্য ইমপ্লেমেনটেশন রিভিউ গ্রুপের দ্বিতীয় রিজিউমড এর নবম সেশনে বক্তব্যকালে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ এ কথা বলেন। দুদকের জনসংযোগ শাখা থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বাংলাদেশের ডেলিগেশন টিমের প্রধান দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, রিভিউয়ের (পুননিরীক্ষণ) প্রথম সাইকেলে বাংলাদেশ ইরান এবং প্যারগুয়ের মাধ্যমে রিভিউড (পুননিরীক্ষিত) হয়েছে। পাশাপাশি বাংলাদেশ ফিজি এবং ফিলিপাইন্সকে রিভিউ (পুননিরীক্ষণ) করেছে। ইকবাল মাহমুদ বলেন, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত দুর্নীতির সুনির্দিষ্ট অভিযোগে ১৮৯টি মামলা দায়ের এবং ২২৩টি অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করেছে। ২০১১ সালে যেখানে দুদকের মামলায় বিচারিক আদালতে সাজার হার ছিল ২০ শতাংশ, ২০১৭ সালে তা ৬৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। মানিলন্ডারিং মামলার ক্ষেত্রে এই সাজার হার ১০০ শতাংশ। ২০১৫ সাল থেকে এ পর্যন্ত মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত ২৩টি মামলার রায় হয়েছে, প্রতিটি মামলায় আসামিদের সাজা হয়েছে। তিনি বলেন, ২০১৩ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত আদালতের নির্দেশে কমিশনের বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্তদের ৭১৫.২ মিলিয়ন টাকা (৮.৮৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে, একইভাবে ২০২৭.৪৬ মিলিয়ন টাকা (২৫.৯৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) জরিমানা করা হয়েছে। ২০১৩ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ৫৫০টি দুর্নীতি ও মানিলন্ডারিং মামলায় আসামিদের বিচারিক আদালতে সাজা হয়েছে।